• আজ শুক্রবার, ১৫ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৩০ জুলাই, ২০২১ ৷

সোনাগাজীতে চারটি কালভার্ট ভেঙ্গে জনদুর্ভোগে গ্রামবাসী

Feni news
❏ শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৬, ২০২১ চট্টগ্রাম

আবদুল্লাহ রিয়েল,ফেনী প্রতিনিধি: ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার বাগাদানা ইউনিয়নে আলমপুর গ্রামের রাস্তাসহ চারটি কালভার্ট ভেঙ্গে গেছে। এতে করে এলাকার হাজারো মানুষ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, গত একবছর ধরে রাস্তা ও কালভার্টগুলো ভাঙ্গা অবস্থায় পড়ে আছে। মাটির রাস্তায় বড় গর্ত হয়ে কাটা পড়ে রয়েছে কিন্তু কর্তৃপক্ষ সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছে না।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বাগাদানা ইউনিয়নের আলমপুর গ্রামের নুরুল হক মেম্বার সড়ক ও  কালভার্ট পুরোপুরি ভেঙ্গে গেছে। সড়কের মাটি সরে গিয়ে ২মিটার বড় গর্তের সৃষ্টি করেছে। কালভার্টের একপাশের ভেঙ্গে ঢালাই ভেঙে রড বের হয়ে গেছে।

অন্যদিকে একি এলাকার (আলমপুর) মো: রফিকের বাড়ি থেকে ভারেদ্র কুমার শ্রীলের বাড়ি পর্যন্ত পর পর তিনটি কালভার্ট ভেঙ্গে নাজুক অবস্থায় রয়েছে। এর মধ্যে একটি একপাশে আড়াআড়ি ঢালু  অবস্থায় ও অপর দুইটির উপরের অংশ ভেঙ্গে যান ও জনচলাচল বিপর্যস্ত করছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মসজিদ-মোক্তবে যাতায়াতে কয়েক হাজার ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ মানুষের প্রতিনিয়ত বিপাকে পড়ছে। চলাচলে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েন শিশু, রোগী, বৃদ্ধা নারী-পুরুষ ও গর্ভবতী মহিলারা। জরুরি প্রয়োজনে রোগীকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়া যাচ্ছে না। সড়ক ও কালভার্টের মেরামত বা বিকল্প পথ নির্মাণ না হওয়ায় যোগাযোগের ক্ষেত্রে হাজারো মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই।

 ওই এলাকার বয়োজ্যেষ্ঠ আব্দুল হক (৭০) ও আবুল বসার (৬৪) বলেন, দীর্ঘদিন ধরে কালভার্টগুলো ভেঙ্গে আছে। চেয়ারম্যানকে অনেকবার বলেও কোন প্রতিকার হচ্ছে না। সবধরনের যান চলাচল বন্ধ হওয়ায় কোন আত্মীয় স্বজন ইচ্ছে করলেও বাড়িতে আসতে পারে না। বিপদে রোগীদের নিয়ে হাসপাতাল যেতে কষ্ট হয়। আমরা জানি না কবে আমাদের এই দুঃখ শেষ হবে।

 স্থানীয় ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন বাবুল বলেন, আলমপুর গ্রামের ৪টি কালভার্ট দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। এর মধ্যে একটির রাস্তাসহ ভেঙ্গে গেছে। স্ক্যাভেটর মেশিন দিয়ে খাল খননের সময় কালভার্টগুলো ভাঙ্গা পড়ে এবং রাস্তার মাটি সরে যায়। এতে এলাকাবাসী সীমাহীন কষ্টে যাতায়াত করছে। এগুলো সংস্কারের ব্যাপারে আমি চেয়ারম্যানকে বেশ কয়েকবার জানিয়েছি। কিন্তু সংস্কার হচ্ছে না।

বগাদানা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইসহাক খোকন বলেন, কালভার্টগুলো সংস্কারের জন্য আবেদন দিয়েছি। এলজিইডি থেকে কখন বরাদ্দ আসবে নিশ্চিত করে বলতে পারি না।

আরও পড়ুন :

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন