সরিষাবাড়ীতে স্ত্রীকে গলা টিপে হত্যা, স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

১১:২৩ পূর্বাহ্ন | সোমবার, ফেব্রুয়ারী ৮, ২০২১ ময়মনসিংহ
cort

রকিব হাসান নয়ন, জামালপুর- জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ঋণ করে বিদেশ যাবার টাকা পরিশোধের জন্য চাপ দেওয়ায় গলা টিপে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে পলাতক স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জামালপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সিনিয়র দায়রা জজ মো. জুলফিকার আলী খাঁন এই দণ্ডাদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি হলেন উপজেলার করগ্রাম পশ্চিমপাড়া এলাকার ওয়াদুদ মন্ডলের ছেলে হারুন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নির্মল কান্তি ভদ্র জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত হারুনের সাথে রঘুনাথপুর দিঘুলী গ্রামের খলিলুর রহমানের মেয়ে মাহমুদা বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর হারুন কাতার যাবার জন্য সিদ্ধান্ত নেন। মাহমুদা ও তার পিতা নানাজনের কাছ থেকে আড়াই লাখ টাকা ঋণ করে হারুনকে কাতার পাঠান। সেখানে চার বছর অতিবাহিত করে দেশে ফিরলে হারুনকে ঋণের টাকা পরিশোধের জন্য তার স্ত্রী চাপ দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ২০১২ সালের ২৫ জুলাই সকালে হারুনের পরিবারের লোকজন মাহমুদাকে মারধর করলে এবং হারুন গলা টিপে ধরলে ঘটনাস্থলেই মাহমুদার মৃত্যু হয়। এরপর হারুন পালিয়ে যান।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় মাহমুদার বাবা বাদি হয়ে ওই দিনই মাহমুদার স্বামী, ননদ ও শ্বশুর-শাশুড়িকে আসামি করে সরিষাবাড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২১ জন সাক্ষীর মধ্যে ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে ১৮৬০ এর ৩০২ ধারার অপরাধে পলাতক আসামি হারুনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। মামলার বাকি আসামিদের বেকসুর খালাস দেন আদালত।