• আজ ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক ! স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা

১২:২৮ পূর্বাহ্ন | বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১০, ২০২১ ঢাকা
Tangail news

মোল্লা তোফাজ্জল, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করায় স্কুলছাত্রী অন্তৎসত্ত্বা হয়েছে। এ ঘটনায় পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী বিয়ের দাবি করায় এলাকা থেকে পালিয়েছেন প্রেমিক ও তার পরিবার। এ ঘটনায় গত রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে কালিহাতী থানায় মামলা দায়ের করেন।

ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী জানায়, একই স্কুলে পড়ালেখার সুবাদে প্রায় তিন বছর আগে কালিহাতী উপজেলার আরজু মিয়ার ছেলে লিমনের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত বছররের জানুয়ারিতে প্রথম লিমন তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করে। এরপর থেকে প্রতিনিয়তই তাদের শারীরিক মেলামেশা চলতে থাকে। গত ৫ মাস আগে হঠাৎ অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী অসুস্থ হলেও বিষয়টি পরিবারের কাছে গোপন রাখে।

এদিকে, দিন দিন স্কুলছাত্রীর শারীরিক পরিবর্তন দেখা দেয়ায় পরিবাবের লোকজন গত বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) তাকে শারীরিক পরীক্ষা করতে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। ফলাফলে জানতে পারে স্কুল ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা। পরে অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী প্রেমিক লিমনের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দেয়। এতে চরম বিপাকে পড়েছে অন্তঃসত্ত্বা ও তার পরিবার।

কান্না জড়িত কণ্ঠে স্কুল ছাত্রীর বাবা বলেন, আমার মেয়ের যে এতো বড় ক্ষতি করেছে তার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করি। আমার মতো যে অন্য কারো মেয়েকে এভাবে ক্ষতি করা না হয়। অপর দিকে মামলার তিন দিন পার হলেও এখনও আসামীকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এ বিষয়ে লিমনের বাসায় গিয়ে তাকে ও তার পরিবারের সদস্য কাউকে পাওয়া যায়নি। এ ছাড়াও মুঠো ফোনে তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সুমি জানান, এ ব্যাপারে গত রবিবার কালিহাতী থানায় অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে প্রেমিক লিমনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ওই স্কুল ছাত্রী টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। লিমন পলাতক রয়েছে।