• আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মৃত্যুর আগে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি চান মাগুরার ময়েনউদ্দিন মোল্যা

১০:৫৬ পূর্বাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ১১, ২০২১ খুলনা
moyen

মতিন রহমান, মাগুরা প্রতিনিধি: মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়নের নারানদিয়ে গ্রামের ময়েনউদ্দিন মোল্যা (৮৬)। ১৯৭১ সালে উত্তাল সময়ে রনাঙ্গন কাঁপানো একজন বীর সেনানী।

যিনি মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে বৃহত্তর যশোর জেলার পালবাড়ি রাস্তার মোড়, মাগুরার মহম্মদপুরের নহাটা জয়রামপুর, এবং মহম্মদপুরসহ আরো অনেক সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। কিন্তু স্বাধীনতার এত বছর পরেও মেলেনি মুক্তিযোদ্ধার কোনো স্বীকৃতি পাননি কোনো সুযোগ সুবিধাও।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নহাটা ইউনিয়ন কমান্ড, মহম্মদপুর উপজেলা কমান্ড, মাগুরা জেলা কমান্ড কর্তৃক প্রত্যায়ন পত্র পেলেও মেলেনি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি। প্রকৃত একজন মুক্তিযোদ্ধার যা যা থাকা দরকার সবই আছে তাঁর। নেই শুধু স্বীকৃতিটুকু। মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতি নিয়ে যেন মরতে পারেন, এজন্য কাগজপত্র নিয়ে এখনো অনেকের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তিনি।

সাহসী এই বীর মুক্তিযোদ্ধা ময়েনউদ্দিন মোল্যা সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন তিনি। তাই ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় মহম্মদপুরের স্বাধীনতা সংগ্রামের আঞ্চলিক অধিনায়ক বীরপ্রতিক গোলাম ইয়াকুব বাহিনীর অধিনে তার ডাকে সাড়া দিয়ে যুদ্ধ করেছিলেন। এসময় ঘর সংসার ফেলে রেখে, পরিবারের কথা চিন্তা না করে জীবনের মায়া ত্যাগ করে স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলেন ময়েনউদ্দিন মোল্যা।

এ বিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা ময়েনউদ্দিন মোল্যার সহযোদ্ধা নহাটার ব্যাজড়া গ্রামের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস শুকুর মোল্যা জানান, ময়েনউদ্দিনসহ অনেকের সঙ্গে একসাথে তারা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ময়েনউদ্দিন মোল্যা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি না পাওয়ায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন এবং স্বীকৃতির জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

বীর মুক্তিযোদ্ধা ময়েনউদ্দিন মোল্যা আরো জানান, সরকার এখন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দিয়ে আসছেন। তাই জীবনের এই শেষ পর্যায়ে এসে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতিটা পেলে এটাই হবে তার জন্য এক বড় পাওয়া। এজন্য একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।