সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মেয়র রেজাউল করিমের দায়িত্ব গ্রহণ অনুষ্ঠান: বসার আসনও পাননি একাধিক কাউন্সিলর

ctg

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি- চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নতুন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীর দায়িত্ব গ্রহণ অনুষ্ঠান উপলক্ষে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সুধী সমাবেশে অনেক কাউন্সিলর বসার আসন পায়নি বলে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) এর আয়োজনে সমাবেশ শুরু হয়। আমন্ত্রিত অতিথি ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে প্রাণের মেলায় পরিণত হয় মিলনায়তন।

সভাপতিত্ব করছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। প্রধান অতিথি হিসেবে আছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

গত ২৭ জানুয়ারি চসিক নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনকে তিন লাখের বেশি ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন রেজাউল করিম চৌধুরী। ১১ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় চসিক মেয়রকে শপথ বাক্য পাঠ করান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সাধারণ ও সংরক্ষিত মিলিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ৫৩ কাউন্সিলরের (আলকরন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ব্যতীত) জন্য আসন পাতা হয় ৩৭টি। এসব আসন কাউন্সিলরদের জন্য ‘সংরক্ষিত’ মর্মে স্টিকার-স্ট্যান্ড প্রদর্শিত থাকায় বাকি কাউন্সিলরগণ অন্য কোনো আসনেও বসতে পারছিলেন না। ফলে আসন বণ্টনের এই অব্যবস্থাপনায় বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টির পাশাপাশি কাউন্সিলরদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়।

আসন অব্যবস্থাপনা নিয়ে এসময় ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায় ২১ নম্বর জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন ও ২৫ নম্বর রামপুর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুস সবুর লিটনকে।

সরেজমিনে দেখা যায়, সুধী সমাবেশে ৫৪ জন কাউন্সিলরের জন্য আসন ছিল মাত্র ৩৭ টি। তবে সেই আসনগুলোও দখল করে বসে থাকতে দেখা যায় সাধারণ লোকদের। এমন অব্যবস্থাপনায় এক পর্যায়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে নিজের আসন ছেড়ে উঠে যেতে দেখা যায় শৈবাল দাশ সুমন ও আব্দুস সবুর লিটনকে।

ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের ডেকে তাৎক্ষণিকভাবে এবিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলেন দুই কাউন্সিলর। এসময় অন্যন্য কাউন্সিলরদেরকে তাদের সমর্থন দিতে দেখা যায়। পরবর্তীতে সামনের সারির আসন কাউন্সিলরদের জন্য ছেড়ে দেওয়া হলেও পেছনের আসনগুলো ছিল সাধারণ মানুষের দখলে। এ অবস্থায় ৮ নম্বর শোলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোরশেদ আলমসহ বেশ কয়েকজন কাউন্সিলরকে দীর্ঘসময় ধরে আসনের অভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

মঞ্চে আছেন চসিকের বিদায়ী প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, সংসদ সদস্য ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ, নগর মহিলা লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন, সাবেক মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, চুয়েট উপাচার্য ড. রফিকুল আলম, চবির সাবেক উপাচার্য আনোয়ারুল আজিম আরিফ, ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ, নগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, সিডিএর সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, চসিকের সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলররা।

◷ ১২:৪৩ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১ চট্টগ্রাম