সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে মিছিলের ছবি ধারণ করায় সাংবাদিকের ওপর হামলা, আটক ৩

১০:৫৬ পূর্বাহ্ন | বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২১ ময়মনসিংহ
journalist

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টার- শেরপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মারপিটের ঘটনার সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে মিছিলের ছবি ধারণ করায় সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসময় মিছিলকারীদের হামলায় ডিবিসি নিউজের শেরপুর প্রতিনিধি এস এম জুবায়ের দ্বীপ আহত হয়েছেন।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৭টার দিকে শেরপুর শহরের পূর্বশেরী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত সাংবাদিক জুবায়ের দ্বীপ জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে।

সাংবাদিক জুবায়ের দ্বীপ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা আরো ২০-২৫ জনকে আসামি করে মধ্যরাতে সদর থানায় দ্রুতবিচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শেরপুর শহরের পূর্বশেরী এলাকার বাসিন্দা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা মুরশীদুর রহমান আকন্দ ও স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম আজাদের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছে। এর জের ধরে ইতোপূর্বে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিতে অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটে।

সোমবার চতুর্থ ধাপের পৌরসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা মুরশীদুর রহমান আকন্দের অনুসারী নাহিদ হাসান ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে বিজয়ী হন। এতে পুরনো দ্বন্দ্ব আবারো মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে এবং ওইদিন রাতে মুরশীদুর রহমান আকন্দের অনুসারীরা এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করলে সহিংস ঘটনা ঘটে। ওই সহিংস ঘটনার সংবাদ সংগ্রহের জন্য ডিবিসি টিভির শেরপুর প্রতিনিধি এস এম জুবায়ের দ্বীপ পূর্বশেরী এলাকায় যান।

এ সময় অস্টমীতলা এলাকার দিক থেকে আসা ছাত্রলীগ নেতা মুরশীদুর রহমান আকন্দের অনুসারীদের একটি মিছিল থেকে স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে ‘আজাদের দুই গালে জুতা মারো তালে তালে’ স্লোগান দেওয়া হয়।

সাংবাদিক জুবায়ের দ্বীপ সেই মিছিলের ভিডিও ধারণ করতে থাকলে ওই মিছিল থেকেই ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে তাঁর ওপর অতর্কিতে হামলা চালিয়ে তাঁকে মারপিটে আহত করা হয়। এসময় তাঁর মোবাইল ক্যামেরা ও ট্রাইপড ছিনিয়ে নেয় হামলাকারীরা। তাঁকে উদ্ধার করে শেরপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নবনির্বাচিত পৌর মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, সদর থানার ওসি আব্দুলস্নাহ আল মামুন, শেরপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শরিফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন ও সাংবাদিক নৃেতৃবৃন্দ রাতেই আহত জুবায়ের দ্বীপকে দেখতে জেলা হাসপাতালে ছুটে যান ও তাঁর চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন। হামলার ঘটনায় তাঁরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং হামলাকারীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

এ বিষয়ে শেরপুর সদর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সাংবাদিক জুবায়ের দ্বীপের ওপর হামলার ঘটনায় দ্রুতবিচার আইনে একটি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

সাংবাদিক জুবায়ের দ্বীপ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা আরো ২০-২৫ জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলাটি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে এবং ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।