আবারও কোম্পানীগঞ্জ থানা অবরোধ করেছেন কাদের মির্জা

১১:১৩ পূর্বাহ্ন | শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ
kader mirza

সময়ের কণ্ঠস্বর, নোয়াখালী- নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক (ডিসি), পুলিশ সুপার (এসপি), কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও পরিদর্শককে (তদন্ত) প্রত্যাহার এবং চরকাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ফখরুল ইসলাম সবুজকে গ্রেপ্তারের দাবিতে নেতাকর্মীদের নিয়ে ফের কোম্পানীগঞ্জ থানা অবরোধ করেছেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

পূর্বঘোষণা অনুযায়ী শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে দিকে তিনি কয়েকশ নেতাকর্মী নিয়ে থানার সামনে অবস্থান নিয়েছেন। এতে থানার বাহির থেকে পুলিশ সদস্যরা ভেতরে প্রবেশ করতে পারছেন না।

মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। নোয়াখালীর অপরাজনীতির বিরুদ্ধে সব সময় কথা বলে যাব।

কোম্পানিগঞ্জ থানা পুলিশের ডিউটি অফিসার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) ইসমাইল বলেন, থানার সামনে অবস্থান কর্মসূচির কারণে থানার বাহির থেকে পুলিশ সদস্যরা ভেতরে প্রবেশ করতে পারছেন না। অবস্থান কর্মসূচির কারণে আমাদের ভেতর আতঙ্ক কাজ করছে।

এর আগে বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জার ডাকে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে গতকাল বৃহস্পতিবার অর্ধদিবস হরতাল পালিত হয়েছে। এদিন উপজেলা হেডকোয়ার্টার বসুরহাট পৌর বাজার এলাকার দোকানপাট বন্ধ থাকার পাশাপাশি বসুরহাট-দাঁগনভূঁইয়া, কবিরহাট ও চর কাঁকড়া আঞ্চলিক সড়কে গাছ ফেলে অবরোধ করে কাদের মির্জার সমর্থকরা।

বুধবার সকালে কোম্পানীগঞ্জ থানার সামনের অবস্থান কর্মসূচি থেকে এই হরতালের ডাক দেন আবদুল কাদের মির্জা। এর আগে তিনি নেতা-কর্মীদের নিয়ে রাতভর কোম্পানীগঞ্জ থানার সামনে অবস্থান করেন।