• আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘তামিমার সবকিছু জেনেই তাকে বিয়ে করেছি’

৬:২৪ অপরাহ্ন | শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২০, ২০২১ খেলা
nashir

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- এক সপ্তাহও পার হয়নি বাংলাদেশ জাতীয় দলের এক সময়ের নিয়মিত মুখ নাসির হোসেনের আকদের। গেল শুক্রবার তার ফেসবুক পেজে পোস্ট করা বিয়ে ও গায়ে হলুদের ভিডিও নেটদুনিয়ায় এখনো ঘুরপাক খাচ্ছে।

এখনো সেসব পোস্টের কমেন্টবক্সে ভক্তদের শুভকামনায় ভাসছেন জাতীয় দলের এই অলরাউন্ডার। আর এরইমধ্যে বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ পেল, যা শুনে হতভম্ব নাসিরের ভক্তসহ দেশের ক্রীড়াঙ্গন।

জানা গেছে, নাসিরের সহধর্মিণী তামিমা হোসেন তাম্মির এটাই প্রথম বিয়ে নয়। তার আরও এক স্বামী রয়েছে এবং সেই সংসারে ৮ বছরের একটি কন্যাসন্তান আছে। আর সেই স্বামী-সন্তানকে ফেলে এসে নাসিরের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধলেন তামিমা।

তামিমার সেই স্বামীর নাম রাকিব হাসান। তার দাবি, তামিমার সঙ্গে ১১ বছরের দাম্পত্য জীবন কাটিয়েছেন তিনি। তাদের ঘরে ৮ বছর বয়সী মেয়ে রয়েছে। তামিমা তাকে তালাক না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।

এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছেন রাকিব হাসান। ইতোমধ্যে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেছেন রাকিব।

এদিকে শনিবার দুপুরে রাইসা ইসলাম বাবুনি নামক এক ফেসবুক ব্যবহারকারীর একটি পোস্ট ভাইরাল হয়। যেখানে তামিমার স্বামী হিসেবে রাকিব নামে ওই ব্যক্তি দাবি করেছেন, এখনও তাদের মধ্যে বৈবাহিক সম্পর্ক রয়েছে।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ওই পোস্টে রাকিবের সঙ্গে নাসিরের একটি অডিও কলও রয়েছে। যেখানে নাসির রাকিবকে ফোন দিয়ে জানতে চান কেনো তিনি জিডি করেছেন।

ওই ব্যক্তির প্রশ্ন ছিল, ‘আপনি কি তামিমা সম্পর্ক সব কিছু জানেন? উত্তরে নাসির হোসেন বলেন, তার সব কিছু জেনে-শুনেই আমি তাকে বিয়ে করেছি। তার বাচ্চা আছে, আগেও বয়ফ্রেন্ড ছিল, সবকিছুই আমি জানি। আপনার বউ আপনার সঙ্গে ভালো থাকলে নিশ্চয়ই ১১ বছরের সংসার ভেঙে আমার কাছে চলে আসত না।’

বিষয়টি নিয়ে একাধিবার নাসিরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালানো হলে তার ব্যবহৃত দুটি মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। নাসিরের বড় ভাই নাসিম হোসেন জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে রাজি নন।

তিনি বলেন, আপাতত কিছু বলতে চাচ্ছি না। ‘অপেক্ষা করুন, নাসির নিজেই সব স্পষ্ট করবেন