রাজবাড়ীতে যথাযথ মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

২:০৯ অপরাহ্ন | রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২১ ঢাকা
21 rajbari

খন্দকার রবিউল ইসলাম, রাজবাড়ী প্রতিনিধি- দিবসটি পালন উপলক্ষে বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। মহান ভাষা আন্দলনের শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে, শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা খুশি রেলওয়ে ময়দানে অবস্থিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাজবাড়ীবাসী তাদের শ্রদ্ধা নিবেদন করলো।

রাত ১২ টা ১মিনিট বাজার সঙ্গে সঙ্গে জেলা প্রশাসন কর্তৃক শহীদ মিনারে শ্রদ্ধানঞ্জলি অর্পনের মর্ধ্য দিয়ে শুরু হয় শ্রদ্ধা নিবেদন। পরে পুলিশ সুপার এম এম শাকিলুজ্জামান এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

শ্রদ্ধা নিবেদন করে রাজবাড়ী জেলা বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা বৃন্দ। জেলা পরিষদ, রাজবাড়ী স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করেন সিভিল সার্জন মো. রহিম বকস ও সহ অন্যন্য কর্মকর্তা কর্মচারী বৃন্দ। শ্রদ্ধা নিবেদন করে রাজবাড়ী সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, তারপর থেকে সাধারণ মানুষের জন্য উনমুক্ত করে দেওয়া হয় শহীদ মিনার। পরে মধ্য রাত থেকেই শুরু হয় সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন।

পরে সকাল ৮টায় জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করেন, জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে রাজবাড়ী ১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী। এসময় উপস্থিত ছিলেন , জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ফকির আব্দুল জব্বার, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সফি সহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী ।

এর আগে প্রথম প্রহরে আরো শ্রদ্ধা নিবেদন করে। রাজবাড়ী প্রেস ক্লাব এর পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আব্দুল মতিন এর নেতৃত্বে অন্যান্য সাংবাদিক বৃন্দ শ্রদ্ধানঞ্জলি অপর্রন করেন। দৈনিক মাতৃ কণ্ঠ পত্রিকার পক্ষে শ্রদ্ধানঞ্জলি অর্পণ করেন মাতৃকণ্ঠ পত্রিকার সাংবাদিকবৃন্দ। জেলা তথ্য অফিস রাজবাড়ী, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি, পানি উন্নয় বোড রাজবাড়ী শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পরে জেলা জাতীয় পাটির পক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পরন করেন, জাতীয় পাটির সভাপতি এ্যাডঃ হাবিবুর রহমান বাচ্চু। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা জাতীয় পাটির সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এ সময় সরকারী বেসরকারী কয়েকটি প্রতিষ্ঠান শ্রদ্ধানঞ্জলি অর্পন করে। এ ছাড়াও বিভিন্ন সরকারী, বেসরকারী, আধাসরকারী, সায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান ও স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীদের শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে মুখরিত হয়ে ওঠে শহীদ মিনার প্রাঙ্গন।