• আজ শুক্রবার। গ্রীষ্মকাল, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। দুপুর ১:৪৮মিঃ

আশুলিয়ায় সরকারি রাস্তা দখল করে দোকানপাট নির্মাণ!

⏱ | শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২১ 📁 ঢাকা
Asolia news

তুহিন আহামেদ, আশুলিয়া প্রতিনিধি :  আশুলিয়ার শিমুলিয়া-জিরানী সড়কের শিমুলিয়া বাজার এলাকায় সরকারি রাস্তার উপর ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী ইয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে। এরই মধ্যে একাকাবাসির পক্ষ থেকে বাবুল হোসেন নামের এক ব্যক্তি সরকারি রাস্তার উপরে স্থাপিত অবৈধ স্থাপনা অপসারনের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছেন।

গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে আশুলিয়ার শিমুলিয়া বাজার এলাকায় গিয়ে ঘর নির্মাণের এ চিত্র দেখা যায়।

শুক্রবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শিমুলিয়া বাজার থেকে শিমুলিয়া শ্যামা প্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত এবং শিমুলিয়া বাজার থেকে নতুন বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত সরকারি এ রাস্তার উভয় পাশেই রয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক দোকানপাট। দোকানগুলোর মধ্যে রয়েছে স মিল, মুদি দোকান, চায়ের দোকান, কাপড়ের দোকান, মিষ্টির কার্টুনের দোকান, রড সিমেন্টের দোকান, টেইলার্স, ফ্যাক্সিলোডসহ নানা দোকানপাট। বিভিন্ন মনিহারিসহ দোকানপাট রয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক দোকান।

বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, শিমুলিয়া বাজার থেকে শিমুলিয়া শ্যামা প্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তার আরএস দাগ নং ১৩৫০, বিআরএস দাগ ৮৪১৪ এবং শিমুলিয়া বাজার থেকে নতুন বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত আরএস দাগ ১৮২৭, বিআরএস ৮৪২১ নং দাগের রাস্তার উভয় পাশ দখল করে বিভিন্ন দোকানপাট নির্মাণ করা হয়েছে। সরকারি এ রাস্তা দখল করে শিমুলিয়া তীর্থঘাট এলাকার মৃত হামেদ আলীর ছেলে  ইয়ার হোসেন, তার ভাই সাইদুর রহমান,  মৃত মজিবুর রহমান গং সহ  ১০/১২ জন দোকানপাট নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। এছাড়া আবার নতুন করে ইয়ার হোসেন প্রভাব খাটিয়ে ১২০ ফিট লম্বা করে টিন দিয়ে ঘর নির্মাণ করছেন। এটা  অবৈধ ব্যাটারি চালিত অটোরিকশার গ্যারেজ করবেন বলে জানিয়েছেন একাধিক ব্যাক্তি।

এলাকাবাসি জানান, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত ছাত্র ছাত্রী এবং এলাকার হাজার হাজার মানুষজন চলাচল করে। এছাড়া রাস্তাটি দিয়ে যানবাহন চলাচল করে। রেকর্ডীয় দুইটি সরকারি রাস্তা দুটি স্থানীয় ভুমিদস্যু সরকারি রাস্তা দুটি অবৈধভাবে দখল করে দোকানপাট নির্মাণ করে নিজেরা ব্যবসা করছে এবং দোকানপাট ভাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। রাস্তা দখলে নিয়ে দোকানপাট নির্মাণ করে চলাচলে বিঘ্ন ঘটাচ্ছে। রাস্তাটি দখলমুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি জোরদাবী জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিমুলিয়া শ্যামা প্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক জানান, এই রাস্তা দিয়েই প্রতিদিন শত শত লোকজন,  শিক্ষার্থী, পোশাক শ্রমিক, তাদের বহঅন করা বাস সহ নানা যানবাহন চলাচল করে। কিন্তু রাস্তা দখল করে উভয় পাশে দোকানপাট করে রাস্তা সংকীর্ণ করে ফেলেছে। ফলে এখান দিয়ে চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। স্থানীয় প্রভাব খাটিয়ে এর আগেই অনেক দোকান নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। আবার এরই মধ্যে নতুন করে সরকারি রাস্তা ভরাট করে বিশাল আকৃতির একটি অটোরিকশা রাখার গ্যারেজ তৈরী করছেন। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের এদিকে সুদৃষ্টি কামনা করেন এই শিক্ষক।

স্থানীয় বাবুল হোসেন জানান, একের পর এক ঘর করে ভাড়া দিয়ে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন স্থানীয় ইয়ার হোসেন। এবার তিনি নতুন করে সরকারি রাস্তা ভরাট করে টিন সেডের বিশাল একটি ঘর নির্মাণ করছেন৷ শুনেছি এখানে তিনি অটো গ্যারেজ করবেন।

তিনি জানান, এসব বিষয় বিবেচনা করে এবং অবৈধ স্থাপনা অপসারণের জন্য এরই মধ্যে এলাকাবাসির পক্ষে তিনি ঢাকা জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি আবেদন করেছেন। সেই সাথে এর বিপক্ষে গণসাক্ষরও প্রদান করেছে এলাকাবসি। তিনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের আসু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এব্যাপারে অভিযুক্ত ইয়ার হোসেনের মোঠোফোনে বার বার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এব্যাপারে আশুলিয়া রাজস্ব সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ জাহিদ হাসান প্রিন্স জানান, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।