সংবাদ শিরোনাম

ছাত্রলীগ নেতার প্যান্ট চুরির ভিডিও ভাইরাল!পাটগ্রামে ইউএনও’র উপর হামলা, আটক ৬আগের সব রেকর্ড ভেঙ্গে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ৮৩ জনেরশফী হত্যা মামলা: মামুনুল-বাবুনগরীসহ ৪৩ জনকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদনখালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় সারাদেশে দোয়া কর্মসূচিরোহিঙ্গা শিবিরে ফের অগ্নিকান্ডসালথায় তান্ডব: এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের সত্যতা মিলেনিশাহজাদপুরে কৃষকদের মাঝে হারভেস্টার মেশিন বিতরণচাঁদপুরে গণমাধ্যম সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিশ্রমিকদের যাতায়াতের ব্যবস্থা না করলে আইনি পদক্ষেপ : শ্রম প্রতিমন্ত্রী

  • আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নিজের ৬ বছরের মেয়েকে হত্যা করে মসজিদের পাশে ফেলে দেয় মা!

২:৫৭ অপরাহ্ন | বুধবার, মার্চ ৩, ২০২১ আলোচিত, ময়মনসিংহ
atok

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টার- ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার পাড়াটঙ্গী শান্তির মোড় রহিমাতুল জান্নাত মসজিদের পাশে ফেলে যাওয়া অজ্ঞাত ছয় বছর বয়সী লাশের পরিচয় শনাক্তসহ হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। শিশু মেয়েকে হত্যার অভিযোগে তার মা’কে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে শিশুটির মা!

শিশুটির নাম সুচী আক্তার (৬)। সে জামালপুর সদর উপজেলার আড়ালিয়া গ্রামের মোছাঃ চম্পা বেগম ওরফে রুমা (২৬) ও জামালপুর সদর উপজেলার চিতলিয়া গ্রামের সাইফুল ইসলাম দম্পতির মেয়ে।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) রাতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এর আগে সোমবার (১ মার্চ) ভোররাতে গাইবান্দা জেলার গোবিন্দাগঞ্জ উপজেলা থেকে শিশুর মা’কে গ্রেফতার করা হয়।

ময়মনসিংহ জেলা ডিবি পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ বলেন, প্রায় ছয় বছর আগে জামালপুর সদর উপজেলার মুসকিনি গ্রামের মেয়ে চম্পা আক্তার ওরফে রুমার সাথে বিয়ে হয় সাইফুল ইসলামের। সংসার জীবনে তাদের একটি মেয়ে সন্তান (সুচী) জন্ম হয়। সুচীর বয়স যখন চার মাস, তখন চম্পা তার স্বামী সাইফুল ইসলামকে তালাক দিয়ে মেয়ে সুচীকে জামালপুরে তার দাদির কাছে রেখে বগুড়া সদর উপজেলার ঘুন্ডিমোড় এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। একমাস আগে চম্পা বগুড়া থেকে জামালপুর গিয়ে কাউকে কিছু না বলে তার দাদির কাছ থেকে সুচীকে নিয়ে বগুড়া চলে যায়। কিন্তু সুচী বগুড়ায় তার মা’কে ছেড়ে বাবার কাছে যেতে চাওয়ায় প্রায়ই মারধর করত। ঘটনার দুইদিন আগে এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে সূচীর মাথায় আঘাত করেন তার মা।

সুচীর মাথায় আঘাত করার পর সুচী অসুস্থ হয়ে পড়লে বগুড়া হাসপাতালে ভর্তি করে। এর ১ দিন পর শিশুটি মারা যায়। সুচী মারা যাওয়ার পরদিন সেখান থেকে সুচীর মৃতদেহ নিয়ে চম্পা ওরফে রুমা বাসযোগে ময়মনসিংহের মুক্তগাছায় এনে মসজিদের কাছে ফেলে পালিয়ে যায়।

পরে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে ৯টার সময় উপজেলার পাড়াটঙ্গী শান্তির মোড় রহিমাতুল জান্নাত মসজিদের পাশ থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। লাশ উদ্ধারের ১৬ ঘণ্টা পর শুক্রবার দুপুরে শিশুটির পরিচয় পাওয়া যায়। তার নাম সুচী, সে জামালপুর সদর উপজেলার চিতলিয়া গ্রামের সাইফুল ইসলামের মেয়ে বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ।

ওসি শাহ কামাল আরও বলেন, লাশের পরিচয় পাওয়ার পর ২৭ ফেব্রুয়ারি শিশুর বাবা সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে চম্পা ওরফে রুমাকে আসামি করে মুক্তাগাছা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর সোমবার (১ মার্চ) ভোররাতে গাইবান্দা জেলার গোবিন্দাগঞ্জ উপজেলা থেকে চম্পা বেগম ওরফে রুমাকে গ্রেফতার করা হয়।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) দুপুরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট হাফিজ আল আসাদ’র আদালতে তুলা হলে হত্যার কথা স্বীকার করে হত্যার বর্ণনা দেন শিশুর মা।