সংবাদ শিরোনাম

‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তারমধুখালীতে বান্ধবীর সহায়তায় অচেতন করে দফায় দফায় ধর্ষণের শিকার নারী!বাসস্ট্যান্ডে প্রকাশ্যে চায়ের স্টলে ইতালি প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যাগোবিন্দগঞ্জে মর্মান্তিক সড়ক দূঘর্টনায় স্কুল শিক্ষকসহ একই পরিবারের ৪ জন নিহতময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদের পানিতে ডুবে মারা গেলো ৩ শিশুমুহুর্তেই ভয়াবহ আগুন! স্কুলেই পুড়ে মরলো ২০ শিশু শিক্ষার্থী!সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু আর নেই

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মুশতাকের মৃত্যুকে ঘিরে আন্দোলনে বাতাস দিচ্ছে জঙ্গিগোষ্ঠী: তথ্যমন্ত্রী

৬:৩২ অপরাহ্ন | বুধবার, মার্চ ৩, ২০২১ জাতীয়
hasan mahmud

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মুশতাক আহমেদের মৃত্যুকে ঘিরে আন্দোলন নিয়ে পেছন থেকে যারা বাতাস দিচ্ছে, আর ঘাপটি মেরে বসে আছে, তারা জঙ্গিগোষ্ঠী ও স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি।

বুধবার (৩ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত সদ্য প্রয়াত অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বাংলাদেশে যে পক্ষগুলো আজকে এ নিয়ে মাঠ গরম করার অপচেষ্টা করছে, তাদের পেছন থেকে যারা বাতাস দিচ্ছে, আর ঘাপটি মেরে বসে আছে, সেগুলো হচ্ছে জঙ্গিগোষ্ঠী, স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি। এই প্রেক্ষাপটে সাংস্কৃতিককর্মীদের আরও ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন। সারা দেশে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড ছড়িয়ে দেওয়া প্রয়োজন। তাহলে আমাদের নতুন প্রজন্ম এই জঙ্গিগোষ্ঠীর হাত থেকে রক্ষা পাবে এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আমাদের দেশে নানাভাবে যে অপপ্রচার হয়, সেগুলো বন্ধ করা সহায়ক হবে।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, কারাগারে মোশতাকের মৃত্যু নিয়ে নানা ধরনের কথা বলা হচ্ছে। এ নিয়ে পানি ঘোলা করে লাভ হবে না। তদন্ত কমিটি হয়েছে, তদন্তের কমিটির রিপোর্টে বেরিয়ে আসবে তার মৃত্যু স্বাভাবিক ছিলো না-কি কারা কতৃপক্ষের কোনও অবহেলা ছিলো। কিংবা অন্য কোনও কারণ ছিলো কি না। তদন্ত রিপোর্টে বেরিয়ে আসলে সরকার যথাযথ ব্যবস্থা নিতে বদ্ধপরিকর। কিন্তু একজনের মৃত্যুর কারণে ওই আইন বাতিল করতে হবে? এটা তো আইনের দোষ না।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট’ এই আইনে মোশতাক কারাগারে ছিলেন। সেখানে তার মৃত্যু হয়েছে। সেই সূত্র ধরে বলা হচ্ছে, এই আইন বাতিল করতে হবে। অন্য আইনে যারা কারাগারে যায়, সেই আইনে যদি কারাগারে তারও মৃত্যু হয়, তাহলে কি সে আইনগুলোও বাতিল করতে হবে? সে প্রশ্নটাও এসে যায়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আইন তো সবার জন্য। ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট সমগ্র মানুষের ডিজিটাল নিরাপত্তা দেয়ার জন্য। সাংবাদিককে ডিজিটাল নিরাপত্তা দেয়ার জন্য, গৃহিণীকে ডিজিটাল নিরাপত্তা দেয়ার জন্য, কৃষকের ডিজিটাল নিরাপত্তা দেয়ার জন্য। কারও চরিত্র হনন হলে তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা দেয়ার জন্য এই আইন। অবশ্য এই আইনের অপপ্রয়োগ না হয়, সেজন্য আমরা সর্তক আছি। অপপ্রয়োগ হওয়া কাম্য নয়।