সংবাদ শিরোনাম

ছাত্রলীগ নেতার প্যান্ট চুরির ভিডিও ভাইরাল!পাটগ্রামে ইউএনও’র উপর হামলা, আটক ৬আগের সব রেকর্ড ভেঙ্গে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ৮৩ জনেরশফী হত্যা মামলা: মামুনুল-বাবুনগরীসহ ৪৩ জনকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদনখালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় সারাদেশে দোয়া কর্মসূচিরোহিঙ্গা শিবিরে ফের অগ্নিকান্ডসালথায় তান্ডব: এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের সত্যতা মিলেনিশাহজাদপুরে কৃষকদের মাঝে হারভেস্টার মেশিন বিতরণচাঁদপুরে গণমাধ্যম সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিশ্রমিকদের যাতায়াতের ব্যবস্থা না করলে আইনি পদক্ষেপ : শ্রম প্রতিমন্ত্রী

  • আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

হবিগঞ্জে ‘খোয়াই নদীর বাঁধ’ এখন মাদকসেবীদের নিরাপদ আস্তানা!

১:২১ অপরাহ্ন | সোমবার, মার্চ ৮, ২০২১ সিলেট
madok

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি- হবিগঞ্জ শহরতলীর গোবিন্দপুর এলাকায় অবস্থিত খোয়াই নদীর বাঁধ এখন মাদকসেবীদের নিরাপদ আস্তানায় পরিণত হয়েছে। এ অবস্থায় বিপথগামী হচ্ছে যুবসমাজ। পাশাপাশি এলাকায় বাড়ছে অপরাধ প্রবণতা।

জানা যায়, গোবিন্দপুর গ্রামের আবিদ নুর নামে এক ব্যক্তি খোয়াই নদীর বাঁধে গড়ে তুলেছেন বিশাল কলাবাগান। ওই বাগানের ঝোপ-ঝাড়ে প্রতিদিন বসে মাদক সেবনের আসর। উঠতি বয়সী যুবক থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এখানে গাঁজা, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদকসেবন করে থাকেন। দুর্গম এলাকা হওয়ায় সহজে আইনশৃংঙ্খলা বাহিনী পৌঁছাতে পারেনা এখানে। এ সুযোগে মাদকসেবীরা নিরাপদ আস্তানায় পরিণত করেছে ওই বাগানটিকে।

বিশেষ করে হবিগঞ্জ শহরের উঠতি বয়সের যুবকরা ওই আস্তানায় যোগ দেয় প্রতিনিয়ত। মাদক সেবনের পাশাপাশি সেখানে চলে জুয়ার আসর।

সরেজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায় মাদকসেবীদের ভিড়। সাংবাদিক পরিচয় জানার পর খোয়াই নদীর বাঁধ পেরিয়ে পালিয়ে যান তারা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বাগান মালিক আবিদ নুর নিজেই মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। মূলত মাদক ব্যবসা প্রসারের জন্যই তিনি এখানে কলাবাগানের নামে আস্তানা গড়ে তুলেছেন। আর এতে করে বিপথগামী হচ্ছে এলাকার যুবক, বাড়ছে নানান অপরাধ কর্মকাণ্ড। তাই আস্তানাটি নির্মূল করতে প্রশাসনিক ব্যবস্থার জোর দাবি জানান তারা।

স্থানীয় বাসিন্দা মোস্তাক আহমেদ জানান, খোয়াই নদীর বাঁধে জনসমাগম না থাকায় সেখানে কৌশলে মাদকের আস্তানা গড়ে তোলা হয়েছে। প্রতিদিন বিকেল বেলায় সেখানে উঠতি বয়সের যুবকরা গিয়ে গাঁজাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকসেবন করেন। তাই ওই এলাকায় প্রতিনিয়ত চুরি, ছিনতাই বাড়ছে।

তৌহিদ মিয়া জানান, মাদকসেবীরা ওই স্থানটিকে নিরাপদ মনে করে মাদকসেবন করেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও সেখানে গিয়ে জোরালো অভিযান করতে পারে না। পুলিশের উপস্থিতি দেখলেই তারা কৌশলে নদী দিয়ে সাঁতড়ে পালিয়ে যান।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ জানান, মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স। মাদক ব্যবসায়ীদের কোনো ছাড় নেই। যেখানেই মাদকের আস্তানা গড়ে উঠবে তা গুড়িয়ে দেয়া হবে।