• আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ফের করোনার সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা, প্রধানমন্ত্রীর তিন নির্দেশনা

৪:২৩ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, মার্চ ৯, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- এপ্রিল, মে ও জুন মাসে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ফের বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ জন্য তিনি তিনটি নির্দেশনা দিয়েছেন।

নির্দেশনাগুলো হলো- আমরা যে যেখানে থাকি ভ্যাকসিন নিই বা না নিই, আমরা যেন অবশ্যই বাইরে মাস্ক ব্যবহার করি। দ্বিতীয়ত, যথাসম্ভব যাতে আমরা সতর্কতা অবলম্বন করি। তৃতীয়ত, পাবলিক গ্যাদারিং যেখানে হচ্ছে বিশেষ করে কক্সবাজার বা হিলট্র্যাকসে বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় গ্যাদারিং হচ্ছে, সেখানে যেন একটা লিমিটেড সংখ্যায় থাকি। নিজেদের যেন একটা দায়িত্ববোধ থাকে, যেখানে বেশি সংখ্যক লোক আছে সেখানে যেন আমি না যাই। যারা যাবেন তারা যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি।

মঙ্গলবার (৯ মার্চ) ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব নির্দেশনা দেন। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম প্রেস ব্রিফিংয়ে নির্দেশনার কথা জানান। মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী সভাপতিত্ব করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী অনুরোধ করেছেন…আমি সব জায়গায় বলছি আমরা খুব কমফোর্ট জোনে আছি এটা যেন চিন্তা না করি। হ্যাঁ, আমরা অনেক দেশ থেকে ভালো অবস্থায় আছি, কিন্তু এটা সম্পূর্ণ নিশ্চয়তা দেয় না যে আমরা একেবারে কমফোর্ট জোনে আছি।’

তিনি বলেন, ‘গত কয়েক দিন ধরে আমাদের যারা এক্সপার্ট, তারা আলোচনা করছেন যেন আমরা খুব কমফোর্ট ফিল না করি। গত বছর কিন্তু আমাদের পিক উঠেছে সামারে (গ্রীষ্মে)। সুতরাং ইট ইজ নট শিউর যে এ বছর উঠবে না। আমাদের যেটা অ্যাপ্রিহেনশন ছিল যে, শীতকালে বুঝি পিকে (সর্বোচ্চ অবস্থায়) চলে যাবে। কিন্তু আমাদের পিক ছিল হাই সামার। সুতরাং এপ্রিল, মে, জুন মাস আমাদের হাই সামার হবে।’

এমন অবস্থায় সবাইকে মাস্ক পরিধানে বাধ্য করতে অভিযানে নামা হবে কি না, জানতে চাওয়া হয় মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা আগে সিনারিওটা দেখি। আমরা তো প্রচার করছি যে, একটা ভ্যাকসিন নিলেই আপনি পরিপূর্ণভাবে প্রোটেকটিভ না। ইভেন ভ্যাকসিন নিলেও মাস্ক পরতে বলা হয়েছে।’

সম্প্রতি টিকা গ্রহণে মানুষের অনীহার বিষয়টি নজরে আনা হলে সচিব বলেন, ‘এটা নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ডিজি হেলথ কাজ করছে। দুই-এক দিন পর তারা কথা বলবে।’

করোনা বেড়ে গেলে আবার লকডাউন হবে কি না- এমন প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, লকডাউনের কথা আমরা এখনো চিন্তা করিনি। যদি বাড়ে তাহলে আবার বৈঠকে বসা হবে, সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। মানুষের জীবন ও জীবিকা দুটো বিষয় নিয়ে আমরা শুরু থেকে কাজ করছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের সঙ্গে কথা বলব।’