সংবাদ শিরোনাম

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে সড়কে দীর্ঘ যানজট!৬ বছরের ছেলে সাহেলের প্রথম রোজা, আপ্লুত মাশরাফিকোরআন তেলাওয়াত, ইবাদতে প্রথম রোজা কেটেছে খালেদারভাঙ্গায় রাতের আঁধারে দফায় দফায় সংঘর্ষ, ভাঙচুর-লুটপাট : আহত-১৫বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে তরুণীর সর্বস্ব কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধেমহাসড়ক যানশূন্য, শিমুলিয়ায় ফেরি পারাপার বন্ধ‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তার

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মশা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার দায় কাউন্সিলরদের ঘাড়ে চাপালেন মেয়র আতিক

৪:৩৮ অপরাহ্ন | শনিবার, মার্চ ১৩, ২০২১ জাতীয়
atik

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- মশা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার দায় এবার ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের ঘাড়ে চাপালেন উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম। শনিবার (১৩ মার্চ) রাজধানীর ভাটারায় মশা নিধনে ক্রাশ প্রোগ্রামে গিয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তাদের মনিটরিং না থাকাও বড় কারণ।

আজ শনিবার সকাল ৯টার দিকে ডিএনসিসির চলতি মাসের মশক নিধন কর্মসূচির পঞ্চম দিনের কার্যক্রম পরিদর্শনে নগরীর ভাটারা এলাকায় এসে এ মন্তব্য করেন তিনি। এর আগে শনিবার সকাল ৮টায় ভাটারা থানার সামনের ১০০ ফুট সড়ক থেকে মশক নিধনে ক্রাশ কর্মসূচি শুরু করে ডিএনসিসি।

অভিযান শুরুর কিছুক্ষণ মেয়র আতিকুল সরেজমিনে পরিদর্শনে আসেন। পরে সেখানে গণমাধ্যমকর্মীদের মুখোমুখি হন তিনি। এক প্রশ্নের উত্তরে মেয়র বলেন, সামগ্রিকভাবে অনেক চ্যালেঞ্জ আছে। তবে মশার উপদ্রব বেড়েছে। আমাদের মনিটরিংয়ের যথেষ্ট ঘাটতি আছে। এখনো সনাতন পদ্ধতিতে মনিটরিং করা হচ্ছে। সনাতন পদ্ধতিতে মনিটরিং করলে এটি চলবে না। আমাদের কাউন্সিলররা আছেন, তাদের কেউ দায়িত্ব নিতে হবে। তাদেরও দায়িত্বের অবহেলা আছে। সিটি করপোরেশনের যারা মশককর্মী, মশক সুপারভাইজার আর যারা দেখাশোনা করে তাদের ঘাটতি আছে।

মেয়র বলেন, দ্রুতই মশার উপদ্রব থেকে রেহাই পাচ্ছে না নগরবাসী। তবে উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে সব ধরনের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। রাজধানীতে এখন কিউলেক্স মশার উপদ্রব বেড়ে গেছে। ফলে গত ৮ মার্চ থেকে আমরা মশা নিধনে ডিএনসিসির বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালাচ্ছি। এই অভিযানে এক হাজার ৪০০ মশক কর্মী একযোগে কাজ করছেন।’

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা এই অভিযানে দেখেছি, ব্যক্তি মালিকানাধীন জলাশয়ে মশার প্রজনন বেশি। এসব জায়গা নিজ দায়িত্বে মালিককে পরিষ্কার রাখতে হবে। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করা হবে।’

দিনের বেলায় ফগার মেশিনের ব্যবহার নিয়ে করা প্রশ্নের উত্তরে মেয়র আতিক বলেন, ‘মশা নিধন অভিযানটি কীটতত্ত্ববিদদের পরামর্শ অনুযায়ী চলছে।’

এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জোবায়দুর রহমান এবং স্থানীয় এলাকার কাউন্সিলর।