• আজ শুক্রবার। গ্রীষ্মকাল, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। রাত ৪:৪৯মিঃ

ত্রিশাল পৌরসভায় পার্ক নির্মাণের জোরালো দাবি নাগরিকদের

⏱ | সোমবার, মার্চ ১৫, ২০২১ 📁 ময়মনসিংহ
Trishal_porsobar_office

মামুনুর রশিদ ত্রিশাল, (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি- ময়মনসিংহের ত্রিশাল পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত হলেও নেই কোনো বিনোদনের ভালো স্থান। পৌরসভায় ৯ টি ওয়ার্ডে প্রায় তিন লাখ মানুষের বসবাস। বেশির ভাগ গলি-সড়ক সরু ও ঘনবসতিপূর্ণ। এ এলাকায় শিশু-কিশোরদের জন্য নেই কোন পার্ক।

অপরদিকে বয়স্কদের জন্য ব্যায়ামাগার বা হাঁটার কোনো খোলা জায়গা নেই। এ এলাকার শিশু-কিশোরদের জন্য খেলাধুলা ও বিনোদনের তেমন কোনো ব্যবস্থা না থাকায় বেশির ভাগ শিশু-কিশোর সময় কাটানোর জন্য বেছে নিচ্ছে মোবাইল ফোন কিংবা ইন্টারনেট। এলাকার সড়কগুলোতে খেলাধুলা করতে গিয়ে মাঝে-মধ্যে বিভিন্ন দুর্ঘটনার শিকার হন অনেকেই।

অভিজ্ঞ মহল মনে করেন, শিশু অধিকারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে উন্মুক্ত স্থানে খেলাধুলা ও চিত্তবিনোদনের সুযোগ, যা শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশ ও শারীরিক গঠনে অন্যতম প্রধান ভূমিকা পার্ক না থাকায় স্বাভাবিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে শিশু-কিশোররা। সরকারি নজরুল কলেজ, সরকারি নজরুল একাডেমী ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠ ছাড়া নেই কোন খেলাধুলার জায়গা। পার্ক ও বিনোদন এর নির্দিষ্ট কোন জায়গা না থাকায় শিশু-কিশোরদের শারীরিক ও মানসিক বৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। ঘনবসতিপূর্ণ ত্রিশাল পৌরসভার উজানপাড়া, গোহাটা, নওধার, ত্রিশাল ভাটিপাড়া, দরিরামপুর সহ আশপাশের এলাকার মানুষ পার্ক নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন।

বয়স্কদের বিশেষ করে যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে তাদের হাঁটা-চলার জন্য নেই কোনো উন্মুক্ত জায়গা। অনেকেই বাধ্য হয়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় সড়কে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ব্যায়াম করতে দেখা যায়।

পৌরসভার স্থানীয় জানান, শুধু শিশু নয়, প্রতিটি মানুষের সুস্থ মন, শারীরিক বৃদ্ধি ও মানসিক বিকাশের জন্য বিনোদনের জায়গা ও পার্ক অত্যন্ত জরুরি। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে আরও অনেক সরকারি জায়গা রয়েছে যা স্থানীয়দের দখলে। সেগুলোও দখলমুক্ত করে শিশুদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা করা।

ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ত্রিশাল পৌরসভা একটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। এ পৌরসভায় আমাদের জাতীয় কবির নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এখানে একটি আন্তর্জাতিক মানের খেলার মাঠ ও ভালো মানের পার্ক থাকলে এই উপজেলাসহ আশেপাশের অঞ্চলের মানুষের বিনোদনের চাহিদা পূর্ণ হবে।

ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছ বলেন, পৌরশহরে খোলা স্থান খুবই কম রয়েছে। যার জন্য খেলার মাঠ ও পার্ক নির্মাণ করা বেশ কঠিন। তবে পৌরসভার পক্ষ থেকে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।