• আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ওয়াজ মাহফিল থেকে ফেরার পথে মুফতিসহ চারজন নিখোঁজ

১:০৬ অপরাহ্ন | বুধবার, মার্চ ১৭, ২০২১ ময়মনসিংহ
saifi

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টার- ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার দুল্লা ইউনিয়নের কুলুরঘাট এলাকায় ওয়াজ মাহফিল শেষে ফেরার পথে মুফতি মীর মুয়াজ্জম হোসাইন সাইফিসহ চারজন নিখোঁজ হয়েছেন।

সাইফির বাড়ি গাজীপুরের টঙ্গীতে। তিনি ঢাকার বায়তুর মামুর জামে মসজিদের খতিব। দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় ইসলামি ওয়াজ মাহফিলে বক্তা হিসেবে বয়ান করে আসছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) বিকালে পরিবারের পক্ষ থেকে সাইফীর আত্মীয় যুনায়েদ হাসান মুক্তাগাছা থানায় গিয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। এর আগে গত (১৪ মার্চ) রাতে ওয়াজ মাহফিল শেষে ফেরার পথে তারা নিখোঁজ হয়।

নিখোঁজ অপর তিনজন হলেন- মুয়াজ্জম হোসাইন সাইফির ব্যক্তিগত গাড়িচালক ফয়সাল আহমেদ (২৪), ক্যামেরাম্যান ইসহাক আলী ইমন (২৮) ও মেহেদী হাসান (২৫)। ফয়সাল আহমেদ ঢাকার খিলগাঁওয়ের ত্রিমোহনীর বাসিন্দা, ইসহাক আলী ইমন পাবনার চাটমোহর এলাকা ও মেহেদী হাসান বগুড়ার আলম দিঘির বাসিন্দা।

নিখোঁজ মীর মুয়াজ্জম হোসইন সাইফি’র আত্মীয় যুনায়েদ হাসান জানান, মুক্তাগাছায় মাহফিল শেষ করে রংপুরে অপর একটি মাহফিলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন তার বোনের স্বামী। তিনি সঙ্গে থাকা তিন জনকে নিয়ে প্রাইভেটকারযোগে রওনা হন। পথিমধ্যে জামালপুরে আব্দুল খালেক নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে রাতযাপন করার কথা ছিল। কিন্তু তিনি সেখানে যাননি। এরপর থেকেই নিখোঁজ রয়েছেন।

মুক্তাগাছা জামিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার পরিচালক তারিক বিন সুলাইমান জানান, প্রধান বক্তা হিসেবে বয়ান শেষে মীর মুয়াজ্জম হোসাইন সাইফি রাত ১২টার পরে খাওয়া-দাওয়া শেষে বিদায় নিয়ে জামালপুর হয়ে রংপুরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন। তিনিসহ চারজন নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ উদ্বিগ্ন।

মুফতি সাইফির স্ত্রী নাঈমা সুলতানা বলেন, ‘নিশ্চয়ই কোনো বিপদ হয়েছে। তিনদিন ধরে স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ নেই। পারিবারিকভাবে আমরা সবাই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছি। তাদের সবার মোবাইল ফোনও বন্ধ রয়েছে। আশা করছি পুলিশ দ্রুত তাদের সন্ধান দেবে’।

মুফতি সাইফির স্ত্রী নাঈমা সুলতানার বরাত দিয়ে মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল আকন্দ বলেন, গত (১৪ মার্চ) দুপুরে ঢাকার ত্রিমোহনী পানিরপাম্প এলাকায় নিজ বাসভবন থেকে ওয়াজ মাহফিলের জন্য মুক্তাগাছা উপজেলার দুল্লা ইউনিয়নের কুলুরঘাট এলাকায় জামিয়া ইসলামিয়া মাদরাসার উদ্দেশে রওয়ানা দেন মুফতি সাইফি ও তার লোকজন। রাত ৮টার দিকে তারা মাদ্রাসায় পৌঁছান। রাত ১১টা থেকে পৌনে ১২টার দিকে সাইফি তার বক্তব্য শেষে খাওয়া দাওয়া করে ১২টা ৫১ মিনিটে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে ব্যক্তিগত প্রাইভেটকার যোগে জামালপুর হয়ে রংপুরের উদ্দেশে রওনা হন। সেখান থেকে নিজ বাসার উদ্দেশ্যে রওনা হতেন।

তিনি বলেন, রাত ১২টা ৫৪ মিনিটে স্ত্রী নাঈমার সঙ্গে সর্বশেষ মুফতি সাইফির শেষ কথা হয়। এরপর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলেও ফোন রিসিভ করেননি। বর্তমানে ওই মোবাইল নম্বরটি বন্ধ আছে। নিখোঁজ চারজনকে খোঁজে বের করতে পুলিশি তৎপরতা চলছে বলেও জানান তিনি।