সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৭শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চকরিয়া ইউএনও’র অভিনব উদ্যোগ: ১৪৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার’

৬:৫৯ পূর্বাহ্ন | বৃহস্পতিবার, মার্চ ১৮, ২০২১ চট্টগ্রাম
chokriya

চট্রগ্রাম প্রতিনিধি- স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, জাতীয় শিশু কিশোর দিবস, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জন্মদিন উপলক্ষে কক্সবাজারের চকরিয়ার ১৪৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ৪টি মহাবিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার’ স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছেন চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন।

এসব কর্নারের শোবা পাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত গ্রন্থমালা। তন্মধ্যে প্রথমদফায় প্রতি কর্নারে শোভা পাবে বঙ্গবন্ধুর জন্ম, শৈশব, জীবনাদর্শ, রাজনীতি, রাজনৈতিক কৌশলসহ জাতির পিতার সারাজীবনের সংগ্রাম ও জীবনচিত্রের ওপর লেখা ৪৬টি করে বই।

আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের আগেই এসব কর্নারে সুশোভিত হবে ৬৮০৮টি বইয়ের সমাহারে একযোগে ১৪৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এই কর্নার স্থাপনের অন্যতম উদ্যোক্তা হলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ শামসুল তাবরীজ।

সেই উদ্যোগকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার কাজ গত বুধবার থেকে শুরু হয়েছে এবং ১৪৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথমদফার ৪৬টি করে বইও বিতরণ করেছেন ইউএনও তাবরীজ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা অঞ্জন চক্রবর্তীসহ সংশ্লিষ্টরা।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা অঞ্জন চক্রবর্তী জানান, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের আগেই উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন, একটি পৌরসভার ১৪৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং চারটি কলেজ যথাক্রমে চকরিয়া সরকারি কলেজ, ডুলাহাজারা কলেজ, উপকূলীয় বদরখালী কলেজ ও চকরিয়া আবাসিক মহিলা কলেজে এসব কর্নার স্থাপনের কাজ শতভাগ সম্পন্ন করা হবে।

জাতির পিতা মুজিব শতবর্ষ, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে ব্যতিক্রমী এসব কর্নার স্থাপনের উদ্যোক্তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ শামসুল তাবরীজ বলেন, ‘নতুন প্রজন্ম যাতে বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধসহ বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলনের বিকৃত ইতিহাসের বদলে প্রকৃত ইতিহাস জানতে পারে সেজন্য এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। এজন্য ১৪৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রথমদফায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম, শৈশব, জীবন আর্দশ, রাজনৈতিক কৌশল, আদর্শসহ সামগ্রিক জীবনচিত্রের ওপর লেখা ৪৬টি করে বই উপহার হিসেবে দেওয়া হয়েছে। আগামীতে আরো বই উপহার হিসেবে দেওয়া হবে কর্নারগুলোতে। বিদ্যালয় ভবনগুলোকে জাতীয় পতাকার আদলে লাল-সবুজেও রাঙানো হয়েছে।’

প্রথমদফায় যেসব বই দেওয়া হলো কর্নারগুলোতে: বঙ্গবন্ধুর ছেলেবেলা, বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাজীবন, কলকাতার জীবন, বঙ্গবন্ধু ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধুর ভাষা আন্দোলন, বঙ্গবন্ধু ও সোহরাওয়ার্দী, বঙ্গবন্ধু ও ভাসানী, বঙ্গবন্ধু ও যুক্তফ্রন্ট সরকার, বঙ্গবন্ধু ও আগরতলা মামলা, বঙ্গবন্ধু ও ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচন, বঙ্গবন্ধু ও অসহযোগ আন্দোলন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ, বঙ্গবন্ধুর কারাজীবন, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন, বঙ্গবন্ধু ও ইন্দিরা গান্ধি, বঙ্গবন্ধুর সংসার জীবন, বঙ্গবন্ধু ও ফজিলাতুন্নেছা, বঙ্গবন্ধু ও শেখ রাসেল, বঙ্গবন্ধুর ৩২ নম্বর বাড়ি, বঙ্গবন্ধু ও বাঙালি জাতিরাষ্ট্রের অভ্যুদয়, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের সংবিধান, বঙ্গবন্ধুর শাসনামল, বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন ভাবনা, বঙ্গবন্ধুর কর্মদর্শন, বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রনীতি, বঙ্গবন্ধুর সমাজতান্ত্রিক ভাবনা, বঙ্গবন্ধু ও মুসলিম বিশ্ব, বঙ্গবন্ধু ও বহির্বিশ্ব, বঙ্গবন্ধু ও বাঙালির জাতীয়তাবাদ, বঙ্গবন্ধু : মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারে তাঁর ভূমিকা, বঙ্গবন্ধুর রাষ্ট্রদর্শন, বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাভাবনা, বঙ্গবন্ধুর মানবাধিকার দর্শন, বঙ্গবন্ধু ও বিশ্বনেতৃত্ব, বঙ্গবন্ধুর ভাষণের ডিসকোর্স বিশ্লেষণ, বঙ্গবন্ধুর নারী উন্নয়ন ভাবনা, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, বঙ্গবন্ধুর চিঠিপত্র, সাহিত্যে বঙ্গবন্ধু, গানের কবিতায় বঙ্গবন্ধু, তৃণমূলে বঙ্গবন্ধু প্রেক্ষাপট দিনাজপুর, বঙ্গবন্ধুর সংস্কৃতি চেতনা, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, বঙ্গবন্ধুর জীবন : কালপঞ্জি, তরুণ প্রজন্মের চোখে বঙ্গবন্ধু।