• আজ মঙ্গলবার। গ্রীষ্মকাল, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সকাল ৬:২৩মিঃ

মেলান্দহে ২৩ বছরের সংসার ভেঙে পরকীয়া প্রেমে ঘর ছাড়লো গৃহবধূ!

৭:৩২ পূর্বাহ্ন | রবিবার, মার্চ ২১, ২০২১ ময়মনসিংহ
Jamalpur news

রকিব হাসান নয়ন, জামালপুর প্রতিনিধি: আজ থেকে ২৩ বছর আগে মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের মোঃ জালাল উদ্দিনের ছেলে শাহাবুদ্দিন (৪০) সাথে বিয়ে হয়েছিলো একই উপজেলার ব্রাহ্মণপাড়া এলাকার মোঃ জলিলের মেয়ে জরিনা আক্তার রুনার (৩৫)। সেই তিল তিল করে জমানো ভালোবাসা,সন্তানের মায়া,স্বামীর বিশ্বাস সবকিছুকে তুচ্ছ করে পরকীয়ার টানে স্বামীর সংসার থেকে শুধু টাকা আর সম্পদ নিয়ে পালিয়ে গেছে জেরিনা আক্তার। তাদের ঘরে এক মেয়ে ও এক পুত্র সন্তান রয়েছে। ।

পরকীয়ার ভয়ানক থাবায় নষ্ট হয়ে যাওয়া মেলান্দহের সহজ সরল শাহাবুদ্দিন জানান,  এক লক্ষাধিক নগদ টাকা, দুই ভরি স্বর্নালংকার,ও রুনার নামে লেখা জমি ১৬ শতাংশ জমির দলিল সহ প্রায় দশ লক্ষ টাকা নিয়ে পরকীয়া প্রেমিক একই উপজেলার টুংগীপাড়া গ্রামের অটোরিকশার মেকার নুরু-ইসলামের এর হাত ধরে পালিয়ে বিয়ে করেছে রুনা।

রুনা’র প্রতারনার শিকার যুবক শাহাবুদ্দিন ও তার পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ১৯৯৮ সালে দুই পরিবারের মিলে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় তাদের।বিয়ের পরের বছরেই এক মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়।

সন্তান বড় হতে থাকে আর পরিবারের সংসার চালানো কঠিন হয়ে পড়ে তাদের। পরে ঢাকায় একটি কাজের জন্য চলে যায় শাহাবুদ্দিন।এক বছর পরে মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় যান। অনেক কষ্ট করে টাকা জমিয়ে শ্বশুরবাড়ি এলাকায় ১৬ শতাংশ জমি কিনে দেয় রুনাকে। সব টাকাপয়সা শ্বশুরবাড়িতেই জমা করতো শাহাবুদ্দিন। গতবছরে করোনাভাইরাস এর মধ্যে ঢাকা থেকে চলে আসেন শ্বশুরবাড়ি ব্রাহ্মণপাড়া।করোনাভাইরাসের জন্য আর ঢাকা ফেরা হয় নাই, পরে শাহাবুদ্দিন অটোরিকশা কিনে।
শাহাবুদ্দিন এই প্রতিবেদককে বলেন, রুনার পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কে আমি কিছুই জানতাম না। সব সময় হাসিমুখে থাকতো আমার সাথে কথা বলতো।
গত বছরের ৮ ডিসেম্বর মাদারগঞ্জ উপজেলার বালিজুরি বাজার থেকে আমাকে অজ্ঞান করে অটোরিক্সা ছিনতাই করে এক দল।পরে হাসপাতালে ভর্তি থাকি দশ দিন। অজ্ঞান করে অটোরিক্সা নেওয়ার পর আমাকে আর দেখতে যাইনি আমার বউ রুনা।
পরে নিজের বাড়িতে এসে জানতে পারি পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েছে।২৩ ডিসেম্বর রাতে বাড়ি থেকে নগদ টাকা পয়সা ও জমি দলিল নিয়ে বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যায় রুনা। ৬ জানুয়ারি আমার কাছে ডিভোর্সের কাগজ আসছে বাড়িতে। পড়ে জানতে পারি ব্রাহ্মণপাড়া এলাকার পরকীয়া প্রেমিক নুরু-ইসলামকে বিয়ে করেছে ।

তিনি আরো বলেন, পরে আমি বুঝতে পারি অটোরিকশা ছিনতাই করেছে ওই পরকীয়া প্রেমিক নুরুইসলাম। এই বিষয় নিয়ে তিন মাস যাবত বিভিন্ন মাতাব্বর মীমাংসা করার কথা বলছে কিন্তু এখনো কোনো মীমাংসা হয় নাই। পরকীয়া প্রেমিক নুরুইসলামের এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান শাহাবুদ্দিন । তার একমাত্র মেয়ে শাকিলা, আদালতের আশ্রয় নেবে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।