• আজ ২৯শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাবেক স্বামীকে ‘সাইকো’ বললেন নাসিরের স্ত্রী তামিমা

১২:৫৭ অপরাহ্ন | সোমবার, মার্চ ২২, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ
tamima

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- মানসিক বিকারগ্রস্ত (সাইকো) বলায় ক্রিকেটার নাসির হোসেনের স্ত্রী তামিমার বিরুদ্ধে এবার সাবেক স্বামী রাকিব থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। রোববার (২১ মার্চ) রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অভিযোগ দায়ের করেন রাকিব।

অভিযোগে বলা হয়, আমি মো. রাকিব হাসান গত ২৪ ফেব্রয়ারি বর্ণিত আসামি তামিমা সুলতানা এর বিরুদ্ধে বিজ্ঞ চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করি যা বর্তমানে তদন্তাধীন রয়েছে। গত ১৯ মার্চ তারিখে বেসরকারি টিভি চ্যানেল ‘Channel 24’ এ ‘সার্চলাইট’ নামক অনুষ্ঠানে একটি অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রচারিত হয় যেখানে আসামি সাক্ষাৎকার প্রদান করে।

উক্ত সাক্ষাৎকারে আসামি আমার সম্পর্কে অত্যন্ত আপত্তিকর এবং ন্যাক্কারজনক এবং মানহানিকর মন্তব্য করে বলেন, ‘ওনার শিক্ষাগত যোগ্যতা অনেক কম’, ‘সে একজন সাইকিক’, ‘সাইকোলোজিকাল প্রেম না হলে এসব জিনিস বিশ্বাস করে’, ‘ও নিজেও হাতের মধ্যে এখানে তাবিজ পরে, গলায় তাবিজ পরে, হ্যাঁ একেক জায়গায় তাবিজ পরে’, ‘আধ্যাত্বিক টাইপের কথাবার্তা বলে’, ‘ওকে মেডিকেলে পাঠানো হোক’, ‘ওর মেন্টালিভাবে সাইকো’, ‘তুবা মণি রাকিবের জন্য একটা এটিএম কার্ড’।

অভিযোগে আরও বলা হয়, উক্ত অনুষ্ঠানটি বিভিন্ন স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। আসামি ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় আমার বিরুদ্ধে মানহানিকর ও আক্রমণাত্নক মন্তব্য প্রকাশ করে। এছাড়াও আসামি আমার ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত দিয়ে কথা বলেছেন এবং আমার আর আমার শিশু কন্যা তুবা (০৮) এর পিতা-কন্যার সম্পর্ককে অপমান করেও বক্তব্য দিয়েছেন, যা আমাকে এবং আমার পরিবারকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করেছে এবং আমাদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। এমতাবস্থায় আসামির বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮ এর ২৫, ২৮ এবং ২৯ ধারার অপরাধের অভিযোগ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এজাহার দায়ের করলাম।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস বলেন, ‘লিখিত অভিযোগ হিসেবে গ্রহণ করেছি। বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে দেখা হবে। সত্যতা মিললে মামলা হিসেবে গ্রহণ এবং তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এর আগে, গত ২৪ মার্চ ক্রিকেটার নাসির ও তার সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তামিমা তাম্মির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন রাকিব হাসান। মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

ওই মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তাম্মি ও রাকিবের বিয়ে হয়। তাদের ৮ বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। তাম্মি পেশায় একজন কেবিন ক্রু। চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি তাম্মি ও ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা রাকিবের নজরে আসে। পরে পত্রিকায় তিনি ঘটনার বিষয়ে সম্পূর্ণ জেনেছেন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, রাকিবের সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্ক চলমান অবস্থাতেই তাম্মি নাসিরকে বিয়ে করেছেন, যা ধর্মীয় এবং রাষ্ট্রীয় আইন অনুযায়ী সম্পূর্ণ অবৈধ। নাসির তাম্মিকে প্রলুব্ধ করে নিজের কাছে নিয়ে গেছেন।

এজাহারে আরও বলা হয়েছে, তাম্মি ও নাসিরের এমন অনৈতিক ও অবৈধ সম্পর্কের কারণে রাকিব ও তার ৮ বছর বয়সী শিশু কন্যা মানসিকভাবে মারাত্মক বিপর্যস্ত হয়েছেন। আসামিদের এ ধরনের কার্যকলাপে রাকিবের চরমভাবে মানহানি হয়েছে, যা তার জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।