• আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সুনামগঞ্জে ২ দিন পর সাইদুরের লাশ ফেরত দিল বিএসএফ

২:৪৫ অপরাহ্ন | বুধবার, মার্চ ২৪, ২০২১ সিলেট

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি- সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার লাউড়েরগড় সীমান্তের জাদুকাটা নদীর ভারতের নলিকাটা থানার ঘোমাঘাট এলাকায় মৃত কয়লা শ্রমিক সাইদুর রহমানের (২৫) লাশ ৪৮ ঘন্টা (২ দিন) পর ফেরত দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ।

সাইদুর রহমান উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের বড়গোফ টিলাগাও গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে।

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) রাত সাড়ে ৮টার দিকে তাহিরপুর সীমান্তের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পিলার ১২০০/৩ এস এর শাহিদাবাদ এলাকায় বিজিবি ও বিএসএফ এর পতাকা বৈঠক শেষে সুনামগঞ্জ-২৮ ব্যাটালিয়ন বিজিবি ও তাহিরপুর থানা পুলিশের কাছে তার লাশ হস্থান্তর করে।

এসময় বাংলাদেশ বিজিবি ও পুলিশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, লাউড়েরগড় বিজিবির ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার আব্দুর রাজ্জাক ও তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রাজিবুল ইসলাম এবং ভারতীয় শিলং সেক্টরের ১১ বিএসএফএর কেপ্টেন অরবিন্দু সিং ও ভারতীয় পুলিশের কর্মকর্তাগণ।

উল্লেখ্য: কয়লা শ্রমিক সাইদুর রহমান ২২ মার্চ সোমবার ভোর সকালে বিজিবির চোখকে ফাঁকি দিয়ে সীমান্ত নদী জাদুকাটার ভারতীয় অংশের অনেকের সাথে ঘোমাঘাট এলাকায় কয়লা তোলতে যায় সাইদুর। এসময় টহলরত বিএসএফ তারা করলে যাদুকাটা নদী সাতরে সবাই বাংলাদেশে আসতে পারলেও সাইদুর পানিতে ডুবে যায়।

পরে ভারত সীমান্তের প্রায় ১ কিলোমিটার ভিতরে নলিকাটা থানার ঘোমাঘাট এলাকায় বাংলাদেশী এক কয়লা শ্রমিকের লাশ জাদুকাটা নদীতে ভাসমান অবস্থায় পড়ে রয়েছে। পরে স্থানীয়রা খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারে জাদুকাটা নদীর বালিচড়ে পরে থাকা মৃত কয়লা শ্রমিক বড়গোফ টিলাগাও গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে সাইদুর রহমানের শাল।

পরে মঙ্গলবার ভারতীয় পুলিশ ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে রাত সাড়ে ৮ টার সময় বাংলাদেশ বিজিবি ও পুলিশের কাছে তার লাশ হস্থান্তর করলে বিজিবি ও পুলিশ রাত ৯ টার সময় আইনি প্রকৃয়া শেষে মৃত সাইদুর রহমানের পপরিবারের কাছে হস্তান্তর করে।

এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ রাজিবুল ইসলাম।