• আজ সোমবার। গ্রীষ্মকাল, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। রাত ১২:৪১মিঃ

হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

৪:২৩ অপরাহ্ন | শনিবার, মার্চ ২৭, ২০২১ Uncategorized
ব্রাহ্মণবাড়িয়া

সময়ের কণ্ঠস্বর, হবিগঞ্জ- হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগরে পুলিশ এবং বিএনপির অঙ্গসংগঠন ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার দুপুরের এ ঘটনায় পুলিশসহ দলটির অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। আহতদের হবিগঞ্জ জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালসহ স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বিএনপি নেতাকর্মীরা জানান, সারাদেশে নিরীহ মানুষ হত্যার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে দুপুর শহরের শায়েস্তানগর এলাকার বিএনপি কার্যালয়ে ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছিলেন।

এক পর্যায়ে জেলা কার্যালয় থেকে মিছিল নিয়ে শায়েস্তানগর পয়েন্টে গেলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে কোনো কারণ ছাড়াই পুলিশ তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে বিএনপির অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়। গুলিবিদ্ধ হয় বেশ কয়েকজন। সংঘর্ষের সময় পুলিশ বিএনপির ১০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে।

এদিকে পুলিশ জানায়, কোনো অনুমতি ছাড়াই বিএনপি অংশসংগঠন তিনটির নেতাকর্মীরা প্রধান সড়কে যান চলাচল ব্যাহত করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছিল। এসময় তাদের বাধা দিতে গেলে তারা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এক পর্যায়ে রাস্তায় ব্যরিকেড দিয়ে আগুন জ্বালায়। এ সময় তাদের ছোড়া ইটপাটকেলের আঘাতে পুলিশের অন্তত ১০ সদস্য আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে।

শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করার সময় পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষ লাগে বলে জানান জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমেদ চৌধুরী। তিনি বলেন, পুলিশের হামলায় প্রায় অর্ধশত নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। পুলিশের আতঙ্কে আহত অনেকে হাসপাতালেও যেতে পারছেন না।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুশফিক আহমেদ বলেন, পুলিশের লাঠিচার্জে জাহিরুল হক শরীফ, আব্দুল আহাদ ও আব্দুল কাইয়ুমসহ অনেক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

কেন্দ্রীয় বিএনপির সমবায়বিষয়ক সম্পাদক জিকে গউছ বলেন, সংঘর্ষের পর পুলিশ তার বাসা থেকে তার ভাই জিকে গাফফার, ছেলে ব্যারিস্টার গোলাম কিবরিয়া পুলকে ধরে নিয়ে গেছে।

হবিগঞ্জ সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের ইটপাটকেলের আঘাতে অন্তত ১০ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। পুলিশ নেতাকর্মীদের ছাত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।