• আজ সোমবার। গ্রীষ্মকাল, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সন্ধ্যা ৬:০০মিঃ

আশুলিয়ায় ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণের লোভে শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা; আটক ১

১২:২২ অপরাহ্ন | সোমবার, মার্চ ২৯, ২০২১ ঢাকা
child

তুহিন আহামেদ, আশুলিয়া প্রতিনিধি: ঢাকার আশুলিয়ায় অপহরণের পর ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণের লোভে বাড়ির মালিকের ছেলে রাজা মিয়া (১০) কে হত্যা করেছে এক ভাড়াটিয়া দম্পতি। এ ঘটনায় মূল অভিযুক্ত পালিয়ে গেলেও তার স্ত্রী লিজা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।

রবিবার দিবাগত রাত ১২ টার দিকে আশুলিয়ার বঙ্গবন্ধু রোডের চৌরাস্তা এলাকায় কালাম মাদবরের বাড়ি থেকে ওই শিশুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এরআগে সন্ধ্যায় ওই শিশুকে অপহরণের কথা বলে ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন ভাড়াটিয়া আরিফুল ইসলাম।

নিহত রাজা আশুলিয়ার বঙ্গবন্ধু রোডের চৌরাস্তা এলাকার কালাম মাদবরের ছেলে। সে স্থানীয় হলিক্রিসেন্ট স্কুলের শিক্ষার্থী ছিল।

অভিযুক্তরা হলো, পাবনার সুজানগর থানাধীন ভাতশালা এলাকার তফিজ উদ্দিনের ছেলে আরিফুল ইসলাম (২৫) এবং তার স্ত্রী লিজা (২২)। অভিযুক্তরা গেল ১ মাস আগে ওই বাড়ির একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকুরী করতো।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, সন্ধ্যায় চা খাওয়ানোর কথা বলে ভাড়াটিয়া আরিফুল তার বাসায় রাজাকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে ওই শিশুকে হত্যার পর হাত পা বেঁধে বস্তাবন্দী করে বেলকনিতে ফেলে রাখে। পরে সে বাসা থেকে বের হয়ে যায় এবং শিশু রাজার বাবাকে ফোন করে ৫০ লাখ টাকা নিয়ে উত্তরায় যেতে বলে।

পরে ঘরে থাকা আরিফের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রথমে সে মিথ্যা তথ্য দেয়। তবে রাজার স্বজনরা ঘরে তল্লাশী চালিয়ে তার বস্তাবন্দি মরদেহ বেলকনিতে খুঁজে পায়। নিহত শিশুর মুখে কাপড় ঢুকানো ছিল ও জুতার ফিতা দিয়ে পা ও গলা বাঁধা অবস্থায় ছিল।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই শিশুর হাত পা বাঁধা অবস্থায় বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এব্যাপারে আশুলিয়া থানার ওসি (তদন্ত) জিয়াউল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে একজনকে আটক করা হয়েছে। অভিযুক্ত আরিফুলকে দ্রুত গ্রেফতার করার জন্য চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।