🕓 সংবাদ শিরোনাম

চুয়াডাঙ্গায় ৬ বছ‌রের শিশুকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত যুবক গ্রেফতারলাথি দেওয়া সেই শিক্ষক ছেলের আইনানুগ বিচার চান বাবামানিকগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় চেয়ারম্যান গ্রেফতারহামলা ঠেকাতে প্রশাসন ব্যর্থ নাকি গাফিলতি, প্রশ্ন ইনুরগোপালগঞ্জে পিকআপ ভ্যান ও নসিমনের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত ২লিটারে ৭ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেলের দামযুবলীগ চেয়ারম্যানের নম্বর ক্লোন করে প্রতারণা, মূলহোতাসহ গ্রেফতার ২ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর বিকৃত ছবি শেয়ার করায় সাংবাদিক গ্রেপ্তারহিন্দু ভাই-বোনদের ভয় নাই, পাশি আছি: ওবায়দুল কাদেরসহিংসতায় দায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

  • আজ মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ১৯ অক্টোবর, ২০২১ ৷

ঝালকাঠিতে ভুয়া ফেইসবুক আইডির ছড়াছড়ি,বিপাকে সন্মানিত ব্যক্তিরা!

Jalakhati news
❏ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৮, ২০২১ ফিচার

মোঃনজরুল ইসলাম, ঝালকাঠিঃ ঝালকাঠিতে দীর্ঘদিন যাবত একের পর এক সন্মানিত ব্যাক্তিদের নিয়ে ভুয়া নামে বেনামে ফেইসবুক আইডি দিয়ে কুরুচিপূর্ণ পোস্ট দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি কুচক্রী সাইবার সন্ত্রাসী চক্র। এ চক্রটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তথ্য সন্ত্রাস ও সাইবার সন্ত্রাসী তান্ডব করেই যাচ্ছে। আইনগত পদক্ষেপ নিলেও এর কোন সুরাহা মেলেনি অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী কয়েকজন।

সম্প্রতি ঝালকাঠি শহরের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী,রাজনৈতিক নেতা ও সাংবাদিকদের নিয়েও এসব ভুয়া ফেইসবুক আইডি দিয়ে অপপ্রচার শুরু হয়েছে। এতে বিপাকে পড়েন এসব সন্মানিত ব্যাক্তিরা।  থেমে নেই উপজেলা শহর থেকে শুরু করে গ্রামেও চলছে এসব ভুয়া ফেইসবুক আইডির হয়রানি।

ঝালকাঠি শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহী জর্দা কোম্পানির এমডি শামীম আহমেদের নামে “সুশান্ত শাহা,আমি বলছি,sai ami” সহ কয়েকটি আইডি দিয়ে কুরুচিপূর্ণ পোস্ট করাসহ মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে।  তিনি এ ব্যাপারে আইনগত পদক্ষেপ নিবেন বলে জানান। তিনি বলেন যারা ভুয়া ফেইসবুক আইডি দিয়ে কুরুচিপূর্ণ পোস্ট করে অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদের কঠোরভাবে দমনের জন্য সর্বোচ্চ পদক্ষেপ নিবেন।

অপরদিকে “সিমা আক্তার,ঝালকাঠির শয়তান,আমি চাউল চোর,ঝালকাঠি নিউজ” সহ প্রায় শতাধিক ভুয়া ফেইসবুক আইডি দিয়ে কুরুচিপূর্ণ পোস্ট করে অপপ্রচারও বিভ্রান্ত ছড়িয়ে যাচ্ছে এ সাইবার সন্ত্রাসী চক্র।  এরা রাজনৈতিক নেতাদের সাংবাদিকদের ও ব্যাবসায়ীদের নামের সম্মানহানিকর পোস্ট করে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এদিকে কাঠালিয়া উপজেলার শৌলজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান রিপনের ছবি দিয়ে তার নামে ভুয়া ফেইসবুক আইডি খুলে তার সন্মানহানি করার চেষ্টা করছে অপর একটি সাইবার সন্ত্রাসী চক্র।  শুধু তার নামেই নয় কচুয়া সাংবাদিক নামে এক স্থানীয় সাংবাদিকের ছবি দিয়েও ভুয়া ফেইসবুক আইডি খুলে অপপ্রচার চালাচ্ছে ওই চক্রটি। এ বিষয় ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান রিপন বলেন, তার নাম ও ছবি দিয়ে ভুয়া ফেইসবুক আইডি খুলেছে একটি কুচক্রী সাইবার সন্ত্রাসী। এখন ওই আইডি দিয়ে কখন কি করে এ নিয়ে বিপাকে পড়েছে তিনি। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও থানা পুলিশকে অবহিত করেন তিনি।

একইভাবে নলছিটি পৌরসভাসহ উপজেলার কুশঙ্গল ইউনিয়নে,সুবিদপুর ইউনিয়নে,মোল্লাহাট ইউনিয়নে,কুলকাঠি ইউনিয়নে, রানাপাশা ইউনিয়নে ও দপদপিয়া ইউনিয়নের রাজনীতি ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ভুয়া ফেইসবুক আইডি খুলে অপপ্রচার চালাচ্ছে স্থানীয় সাইবার সন্ত্রাসী চক্র বলে গুরুতর অভিযোগ। প্রতিটা ইউনিয়নেই ৮-১০ ভুয়া ফেইসবুক আইডি দিয়ে কুরুচিপূর্ণ পোস্ট ও অপপ্রচার চালাচ্ছে ওই চক্রটি।  এ বিষয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন নলছিটিবাসী।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাইবার সন্ত্রাসীদের প্রতিরোধ করতে না পেরে  বিপাকে পড়েছে ভুক্তভোগী  সন্মানিত ব্যক্তিরা। আইনগত পদক্ষেপ নিয়েও কোন প্রতিকার মেলেনি বলেও জানান ভুক্তভোগীরা।

তবে ঝালকাঠির একজন সাইবার সন্ত্রাসী চিহ্নিত হলে তার বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত ৪ টি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা ও একডজন জিডি করা হয়। স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোন পদক্ষেপ না নিলেও সাইবার আদালতে তার মামলাগুলো বিচারধীন রয়েছে বলে ভুক্তভোগী মামলার বাদী জানান।

দেশে ফেসবুক ব্যবহার করেন আড়াই কোটির বেশি মানুষ। এর মধ্যে ভুয়া বা ফেক আইডিধারীর সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। বছর দুয়েক আগেও এ সংখ্যা ছিল মোট ব্যবহারকারীর অর্ধেক। বর্তমানে এ সংখ্যা অনেক কমেছে বলে মনে করে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো।

ফেসবুকের আইডি খোলার পদ্ধতি সহজ হওয়ায় ফেক আইডি খোলা হচ্ছে একের পর এক। ভুয়া আইডি থেকে বিতর্কিত পোস্ট, বিতর্কিত ছবি, বিদ্বেষমূলক পোস্ট দিয়ে সামাজিক ও রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরি হয়েছে বিভিন্ন সময়ে। কিন্তু কোন আইডি থেকে, কারা করেছে তা অনেক সময়ই চিহ্নিত করা যায়নি।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, নিয়ন্ত্রক সংস্থা বা সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো অনেক সময় ভুয়া আইডি চিহ্নিত করতে পারে। আবার কখনও পারে না প্রযুক্তিগত দুর্বলতার কারণে। অনেক সময় লাইসেন্সবিহীন ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো নিয়ন্ত্রক সংস্থার নিয়ম না মানার কারণেও ফেক আইডিগুলো চিহ্নিত করা যায় না।

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) একজন সিনিয়র সহকারী কমিশনারের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘ফেক আইডি বলতে আসলে কিছু নেই। নাম-ঠিকানা হয়তো মিথ্যা দিয়ে আইডিগুলো পরিচালনা করা হয়। কিন্তু আইডিগুলো রিয়্যাল। সেগুলো কেউ না কেউ পরিচালনা করে। দেশে ফেসবুক ব্যবহারকারী অধিকাংশ মানুষেই একাধিক আইডি ব্যবহার করে। এদের মধ্যে পরিচিত বা তারকাদের নামে অনেকে আবার আইডি খুলে প্রতারণা করে। সাইবার জগতে প্রতিদিনই অপরাধের সংখ্যা বাড়ছেই। কখনও হুমকি, কখনও মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে দেওয়া, আবার কখনও গুজব রটানো হচ্ছে। এদের সবাইকেই আইনের আওতায় আনা সম্ভব।’

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন