🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৬ অক্টোবর, ২০২১ ৷

এদফায় টানা দুই সপ্তাহের পূর্ণ লকডাউন দেয়ার সুপারিশ

লকডাউনের সুপারিশ
❏ শুক্রবার, এপ্রিল ৯, ২০২১ ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকাঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলার জন্য টানা দুই সপ্তাহের পূর্ণ লকডাউন দেয়ার সুপারিশ করেছেন দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে গঠিত জাতীয় পরামর্শক কমিটি। সিটি করপোরেশন এলাকায় পূর্ণ লকডাউনের সুপারিশও করেছেন তারা।

শুক্রবার কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহর সই করা এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত একমাস ধরে করোনার সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি চলছে। তা নিয়ন্ত্রণে ১৮ দফা নির্দেশনা জারি হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ বিধিনিষেধ দিলেও তা না মানায় করোনা নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে না।

ফলে সংক্রমণ ও মৃত্যু দুটোই বেড়েছে। এই সংক্রমণ ও মৃত্যু নিয়ন্ত্রণে আরও দুই সপ্তাহের লকডাউন করা যেতে পারে। বিশেষ করে সিটি কর্পোরেশনের এলাকা ও উচ্চ সংক্রমণ এলাকাগুলোতে দুই সপ্তাহের পূর্ণ লকডাউন দেয়া যেতে পারে।

এছাড়া পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশেও টিকা কর্মসূচি সফল করার লক্ষ্যে ভ্যাকসিন সরবরাহ নিশ্চিত করতে সুনির্দিষ্ট নীতিমালার মধ্যে বেসরকারীভাবে ভ্যাকসিন আমদানী করে টিকাদানের সুপারিশও করেছে কোভিড মোকাবিলায় জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

এর আগে শুক্রবার সকালে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৪ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের জন্য সর্বাত্মক লকডাউন নিয়ে ভাবছে সরকার।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে, লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার। সঙ্গে বাড়ছে জনগণের অবহেলা ও উদাসীনতা। এমন অবস্থায় সরকার জনস্বার্থে আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের জন্য সর্বাত্মক লকডাউনের বিষয়ে সক্রিয় চিন্তা ভাবনা করছে।

চলমান এক সপ্তাহের লকডাউনে জনগণের উদাসীন মানসিকতার কোনো পরিবর্তন হয়নি বলেও মন্তব্য করেন কাদের।

এর আগে, ৪ এপ্রিল লকডাউন নিয়ে ১১ দফা নির্দেশনা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

আরও পড়ুন,

আরও এক সপ্তাহ ‘সর্বাত্মক’ লকডাউন হতে পারে: ওবায়দুল কাদের