আজ রোজা রেখেছেন চাঁদপুরের ৪০ গ্রামের মুসল্লীরা

mosq
❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৩, ২০২১ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

মাহফুজুর রহমান, চাঁদপুর প্রতিনিধি- সৌদি আরবসহ আরব দেশসমূহের সঙ্গে মিল রেখে একদিন আগেই মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) থেকে চাঁদপুরের ৪০ গ্রামে পবিত্র মাহে রমজান মাসের রোজা রেখেছেন মুসল্লীরা।

জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলায় সাদ্রা দরবার শরীফের অনুসারীরা সৌদির সঙ্গে মিল রেখে আগাম রোজা, ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা উদযাপন করেন।

এই মতের অনুসারী ফরিদগঞ্জের টোরা মুন্সিরহাট জামে মসজিদের প্রধান মাওলানা আকরাম হোসেন জানান, আরবিরীতি অনুযায়ী হানাফি মাজহাবের অনুসারীরা ৩০ শাবান শেষ হওয়ার পর পবিত্র রোজা পালন করবেন। এটাই নিয়ম। সেই মোতাবেক গত একশ বছর ধরে আমরা এই নিয়ম পালন করছি।

এটি মূলত চালু করেন, সাদ্রা দরবার শরীফের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম পীর মাওলানা ইসহাক (রহ.)। সেই থেকে আজ পর্যন্ত চাঁদপুরের কয়েকটি উপজেলার ৪০টি গ্রামের মুসলিম সম্প্রদায়ের একাংশ পবিত্র রোজা এবং দুটি ঈদ পালন করছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১৯২৮ সাল থেকে এই দরবার শরীফের প্রথম পীর মাওলানা ইসহাক (রা.) এই দেশে চন্দ্রমাস হিসেব করে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র রোজা পালন এবং সেই হিসেবে দুটি ঈদ উদযাপন শুরু করেন। এরপর তার অনুসারীরা এই ধারাবাহিকতা মেনে চলেছেন।

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর এবং শাহরাস্তি উপজেলার প্রায় ৪০টি গ্রামের বাসিন্দারা সৌদির সঙ্গে মিল রেখে রোজা ও ঈদ পালন করেন।

আগাম রোজা শুরু হওয়া গ্রামগুলোর মধ্যে রয়েছে- হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা, সমেশপুর, অলীপুর, বলাখাল, মনিহার, জাক্নি, প্রতাপপুর, বাসারা। ফরিদগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপুর, কামতা, গল্লাক, ভূলাচোঁ, সোনাচোঁ, উভারামপুর, উটতলী, মুন্সিরহাঁট, মূলপাড়া, বদরপর, আইটপাড়া, সুরঙ্গচাইল, বালিথুবা, কাইতপাড়া, নূরপুর, সাচনমেঘ, শোল্লা, হাঁসা, গোবিন্দপুর।

মতলব উত্তর উপজেলার দশানী, মোহনপুর, পাঁচানী এবং শাহরাস্তি ও কচুয়া উপজেলার কয়েকটি গ্রামের অংশবিশেষ।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন