🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৬ অক্টোবর, ২০২১ ৷

করোনায় দেশে নতুন করে দরিদ্র হয়েছে দেড় কোটি মানুষ

Poor
❏ রবিবার, এপ্রিল ১৮, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- চলমান করোনা মহামারিতে দেশে মোট শ্রমশক্তির তিন শতাংশেরও বেশি লোক কর্ম হারিয়েছেন এবং প্রায় দেড় কোটি লোক মহামারির প্রভাবে নতুন করে দরিদ্র হয়েছেন বলে এক গবেষণায় উঠে এসেছে।

শনিবার প্রকাশিত সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) এক গবেষণা প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, চাকরি হারানোদের মধ্যে ছয় দশমিক সাত শতাংশ শহরাঞ্চলে অপ্রাতিষ্ঠানিক কর্মে নিয়োজিত ছিলেন এবং ২০২১ সাল শেষ হতে হতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সর্বোচ্চ সংখ্যক কর্মহীন হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

সিপিডি পরিচালিত গবেষণার পরিপ্রেক্ষিতে ‘করোনাকালে শ্রমবাজার পুনরুদ্ধারে ট্রেড ইউনয়িনের ভূমিকা: কতিপয় প্রস্তাবনা’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সংলাপে জানানো হয়, ২০২০ সালের মার্চ থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে চার লাখ অভিবাসী শ্রমিক তাদের চাকরি হারিয়েছেন।

সিপিডি ও বাংলাদেশ শ্রম স্টাডিজের (বিআইএলএস) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ভার্চুয়াল সংলাপে গবেষণার মূল তথ্য উপস্থাপন করেন সিপিডির গবেষণা পরিচালক খোন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম।

সিপিডির গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম সংলাপের মূল প্রতিবেদন উপস্থাপনায় বলেন, করোনায় সবচেয়ে সমস্যায় পড়েছে দিনমজুর, পরিবহন শ্রমিক, রাস্তার পাশের দোকানদার, হকার, চা বিক্রেতা ও অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের মানুষজন। তাদের ৬৩ শতাংশ ঘর ভাড়া দিতে পারেনি, ৩৯ শতাংশ পানি-বিদ্যুৎ বিল, ৩৬ শতাংশ স্কুল ফি দিতে পারেনি। ৫৭ শতাংশ গরিব মানুষ গ্রামে টাকা পাঠাতে পারেনি।

গত ১২ এপ্রিল বিশ্ব ব্যাংকও এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছে। ‘বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট আপডেট- মুভিং ফরওয়ার্ড : কানেক্টিভিটি অ্যান্ড লজিস্টিকস টু স্ট্রেন্থেন কম্পিটিটিভনেস’ শিরোনামের এক প্রতিবেদনে বিশ্ব ব্যাংক উল্লেখ করেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মকভাবে ছড়িয়ে পড়ায় বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি হার কমেছে এবং দুই দশকের মধ্যে এই প্রথম দেশে দরিদ্র কমার প্রবণতা বিপরীতমুখী।