🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৬ অক্টোবর, ২০২১ ৷

মামুনুলকে গ্রেফতার করায় ফেসবুকে জিহাদের ঘোষণা, যুবক গ্রেফতার

atok
❏ বুধবার, এপ্রিল ২১, ২০২১ আলোচিত, খুলনা

সময়ের কণ্ঠস্বর, মাগুরা- হেফাজত নেতা মামুনুল হককে গ্রেফতারের প্রতিবাদে ফেসবুকে জিহাদের আহ্বান জানানোর অভিযোগে মাগুরায় শাহীন বিপ্লব (২১) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় সোমবার (১৯ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে উপজেলার বালিদিয়া ইউনিয়নের বড়রিয়া গ্রামের পশ্চিম পাড়ার নিজ বাড়ি থেকে মহম্মদপুর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় মহম্মদপুর থানায় শাহীন বিপ্লবের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

গ্রেফতার শাহীন বিপ্লব মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার বড়রিয়া পশ্চিমপাড়া এলাকার শাহজাহান সর্দারের ছেলে। তিনি ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীর ছাত্র ও ছাত্রদলকর্মী।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, হেফাজত নেতা মামুনুল হককে গ্রেফতারের পর নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে তার গ্রেফতারের বিরোধিতা করে স্ট্যাটাস দেন শাহীন। স্ট্যাটাসে বলা হয়, আল্লামা মামুনুল হককে গ্রেফতার করোনি, হৃদয়ে আঘাত করেছ। আর ছাড় দেওয়া হবে না। এতো বড় দুঃসাহস তোমাদেরকে কে দিয়েছে। এখন শুধু একটি জিহাদের ঘোষণার অপেক্ষায় আছি। স্ট্যাটাস থেকে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে জিহাদে আসার আহ্বান জানানো হয়।

পুলিশ জানায়, গত সোমবার (১৯ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টার সময় জানতে পারি শাহিন বিপ্লব তার ফেসবুক আইডিতে জিহাদ করার নামে আক্রমণাত্মক মিথ্যা, ভীতি প্রদর্শক ও দেশ বিরোধী বিভিন্ন লেখা পোস্ট করেছে।

সে এলাকায় বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোসহ আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর পায়তারা করছে। পরে শাহীন বিপ্লবসহ আরও সাত থেকে আটজনের নামে মাগুরার মহম্মদপুর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার পর গ্রেফতার করা হয়।

মহম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, একাধিক রাষ্ট্রবিরোধী, উস্কানিমূলক, মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন লেখা প্রচার করেছেন শাহীন বিপ্লব। ফলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট, সমাজে বিশৃঙ্খলা ঘটার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়।

মহম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারক বিশ্বাস বলেন, পুলিশের দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় শাহীন বিপ্লবকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।