• আজ বৃহস্পতিবার, ৩০ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১৩ মে, ২০২১ ৷

উপায় না পেয়ে প্রাইভেটকারের ছাদে বাবার লাশ বেঁধে শ্মশানে

car
❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৭, ২০২১ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতে বেসামাল অবস্থা। প্রতিদিন বিপুল সংখ্যক সংক্রমণ ও মৃত্যুর পাশাপাশি দেশটিতে চলছে অক্সিজেনের তীব্র সংকট।

দেশটির বিভিন্ন প্রান্তে বিরোধী দলের নেতা বা মুখ্যমন্ত্রীরা এই সংকটের কথা আগেই জানিয়েছেন। কিন্তু উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ দাবি করেছিলেন, তার রাজ্যে অক্সিজেনের কোনো ঘাটতি নেই। সেই যোগীর রাজ্যেরই দুটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে।

ভাইরাল ছবি দুটির একটিতে দেখা যাচ্ছে, গাড়ির ছাদে বাবার লাশ বেঁধে শেষকৃত্যের জন্য নিয়ে যাচ্ছেন এক ব্যক্তি। অন্য ছবিতে দেখা যাচ্ছে, স্বামীর মুখে নিজের মুখ দিয়ে অক্সিজেন দেওয়ার চেষ্টা করছেন এক নারী।

প্রথম ছবিতে দেখা যাচ্ছে, একটি লাল সেডানের ছাদে সাদা চাদরে মোড়া একটি লাশ। এটি আগ্রার মোহিত নামের এক ব্যক্তির বাবার মরদেহ বলে জানা গেছে। তিনি সম্প্রতি করোনায় মারা গেছেন। কিন্তু শেষকৃত্যের জন্য লাশবাহী কোনো গাড়ি পাননি। পরে নিজের প্রাইভেটকারের ছাদে বাবার লাশ বেঁধে আগ্রার মোক্ষধামে নিয়ে যান শেষকৃত্যের জন্য।

তবে এটি কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। উত্তরপ্রদেশে শেষকৃত্যের জন্য শ্মশানের বাইরে রীতিমতো টিকিট কেটে দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হচ্ছে মানুষকে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া আর একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, অটোরিকশায় কোনো রকমে শুয়ে আছেন এক ব্যক্তি। আর তার মুখে মুখ দিয়ে এক নারী অক্সিজেন দেওয়ার চেষ্টা করছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবিটি প্রকাশ করে দাবি করা হয়েছে, ওই ব্যক্তির শ্বাসকষ্ট শুরু হয়েছিল। কিন্তু কোথাও অক্সিজেন পাওয়া যাচ্ছিল না। তাই স্বামীকে বাঁচাতে নিজের মুখ দিয়েই কৃত্রিমভাবে শ্বাসপ্রক্রিয়া চালানোর চেষ্টা করছিলেন ওই নারী। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে বাঁচানো যায়নি বলে জানা গেছে। এটিও উত্তরপ্রদেশের আগ্রার ঘটনা বলে দাবি করা হয়েছে টুইটে।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উত্তরপ্রদেশে ইতিমধ্যেই রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়ে গিয়েছে। সমাজবাদী পার্টি নেতা রামগোপাল বাঘেল রাজ্যের এই পরিস্থিতির জন্য রাজ্য এবং কেন্দ্র সরকারের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। তাঁর অভিযোগ, এই অতিমারীর পরিস্থিতি সামাল দিতে বিজেপি সর্বতোভাবে ব্যর্থ। আর বিজেপি মানুষকে বিভ্রান্ত করছে।

এদিকে হরিয়ানার হিসারে এক হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে ৫ জন রোগীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনা রয়েছে এলাকায়।