পিস হিসেবে তরমুজ কিনে কেজি দরে বিক্রি করায় ১৪ জনকে অর্থদণ্ড

food
❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৭, ২০২১ বরিশাল

বরিশাল প্রতিনিধি- বরিশালে ১৪ ব্যবসায়ীকে পিস হিসেবে তরমুজ কিনে উচ্চমূল্যে কেজিতে বিক্রির অভিযোগে অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে নগরের বিভিন্ন এলাকায় এই অভিযান চালান জেলা প্রশাসনের দুই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। বরিশালের জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দারের নির্দেশে সোমবার বিকেলে ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হাই ও এরয়া ত্রিপুরা অভিযান চালান।

অভিযানে বরিশাল নগরীর পোট রোড, ফলপট্টি, জেল খানার মোড়, নতুন বাজার, নথুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ড, চৌমাথা বাজার, বাংলা বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন তারা।

এসময় বাজারে অবস্থানরত ক্রেতাদের অভিযোগের ভিত্তিতে ম্যাজিস্ট্রেটরা প্রত্যক্ষ করেন তরমুজ ব্যবসায়ীরা পিস হিসেবে আড়ৎ থেকে তরমুজ কিনে ক্রেতাদের কাছে কেজি হিসেবে তা অধিক মূল্যে বিক্রি করছেন।

অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হাই ৮ জন ব্যবসায়ীকে ছয় হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করেন। অন্য একটি অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এরয়া ত্রিপুরা ৬ জন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে তিন হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা জানান, গরমের সুস্বাদু ফল তরমুজ খেটে-খাওয়া মানুষের নাগালের বাইরে বিক্রি করছিল। তরমুজ ব্যবসায়ীরা তরমুজ কম দামে পিস হিসেবে ক্রয় করে সাধারণ মানুষের কাছে খুচরা কেজি দরে বিক্রি করে আসছিল। সিন্ডিকেট করে প্রতি কেজি তরমুজ ৫০/৬০ টাকায় বিক্রি করছিল। এতে একটি তরমুজ ক্রেতাদের কিনতে হয় ৪০০ থেকে ৫০০ টাকায়। যা সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে।

জনস্বার্থে এই অভিযান চলবে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল হাই। এছাড়াও জেলা প্রশাসনের আরও ৩টি ভ্রাম্যমাণ আদালত গতকাল লকডাউন, স্বাস্থ্য বিধি এবং বাজার নজরদারী করে। এ সময় কয়েকজন ব্যক্তি এবং কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে আর্থিক দণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।