সাগরদিঘীতে লাল মাটি কাটার মহোৎসব

Ghatail pic
❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৭, ২০২১ ঢাকা

খাদেমুল মামুন, ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: “আমি চেয়ারম্যানের ছেলে। আমার ভেকু কে থামাবে”। পায়ের উপর পা তুলে ধূম্রশলাকা টানতে টানতে কথাগুলো বলছিলেন ঘাটাইল উপজেলার লক্ষিন্দর ইউনিয়নের একাব্বর চেয়ারম্যানের ছোট ছেলে ফারুক মিয়া।

অল্প কিছু দিন আগেও ঘাটাইলের পাহাড়ি এলাকায় ভেকুমেশিন দিয়ে লাল মাটি কাটা একটি সাধারণ ঘটনা ছিল। পাহাড়ি জমির শ্রেণি পরিবর্তনের মহোৎসব চলছিল। কিন্তু প্রশাসনের নজরদারিতে অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও নিয়ন্ত্রণে আসেনি চেয়ারম্যানের ছেলে ফারুক মিয়া এবং সাগরদিঘী এলাকার মাটি ব্যবসায়ী হারুন মিয়ার মাটি কাটার ভেকু।

কোনো প্রকার আইনের তোয়াক্কা না করে অবাধে চলছে লাল মাটি কাটা আর ফসলি জমিতে পুকুর কাটার হিড়িক। মাটি বিক্রি হচ্ছে উপজেলার ইটভাটাসহ বিভিন্ন স্থানে। ভূমি আইন উপেক্ষা করে অবাধে পুকুর খনন করায় দিন দিন কমে যাচ্ছে ফসলি জমির পরিমাণ।

সাগরদিঘী এলাকার মাটি ব্যবসায়ী হারুন মিয়া বলেন, “উপজেলার বড় বড় অফিসার থেকে শুরু করে স্থানীয় প্রশাসন সব ম্যানেজ করে ভেকু চালাই। নিউজ করে আমার ভেকু বন্ধ করা সম্ভব না”। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার সাগরদিঘী বাজারের বেতুয়াপাড়া এলাকায় তেলের পাম্পের পশ্চিম পাশে চলছে হারুন মিয়ার ভেকু এবং লক্ষিন্দর ইউনিয়নের ছলিং বাজারে পশ্চিম পাশে ফসলি জমি ১০ থেকে ১২ ফুট গর্ত করে মাটি বিক্রি করা হচ্ছে। ভূমি আইন উপেক্ষা করে এসব ফসলি জমিতে পুকুর খনন করা হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানায়, ঘাটাইল উপজেলায় কৃষি জমির পরিমাণ ২৭ হাজার ৮৫১ হেক্টর। এর মধ্যে তিন ফসলি জমি ১৭ হাজার ২১৮ হেক্টর, দুই ফসলি ৮ হাজার ১৮৫ হেক্টর ও এক ফসলি জমির পরিমাণ ২ হাজার ৩১১ হেক্টর।

কথা হয় ফারুক মিয়ার সাথে। তিনি বলেন, “দেশের আইন কে মানে? সব জায়গায় অনিয়ম আছে। সব ভেকু বন্ধ হলেও আমার ভেকু চলবেই। আমার সামনে কোন পুলিশ, সাংবাদিকের টাইম নাই।

ভূমি অফিসের কিছু কর্মকর্তার সঙ্গে যোগসাজস করে মাটি ব্যবসায়ীরা নির্বিগ্নে খনন কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও জানান স্থানীয়রা। প্রকাশ্যে দিনের বেলায় চুটিয়ে চলছে খনন কাজ। এতে করে দিনদিন কমছে ফসলি জমির পরিমাণ। এভাবে চলতে থাকলে আগামিতে শস্যভান্ডারের উপাধি হারাবে উপজেলার এই পাহাড়ি এলাকা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অঞ্জন কুমার সরকার লাল মাটি কাটার সাথে সম্পৃক্তদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন।