শরীয়তপুরে হাঁ‌সে ধান খাওয়া‌কে কেন্দ্র ক‌রে স্বামী-স্ত্রী‌কে ‌পি‌টি‌য়ে আহত

hospital
❏ শনিবার, মে ১, ২০২১ ঢাকা

নয়ন দাস, স্টাফ রি‌পোর্টার, শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার চামটা ইউনিয়নে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হাঁসে ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রী‌কে ‌পি‌টি‌য়ে আহত করার অ‌ভি‌যোগ পাওয়া গে‌ছে।

শুক্রবার (৩০ এ‌প্রিল) সন্ধায় উপজেলার চামটা ইউনিয়নের তেলিপাড়া গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘ‌টে।

আহত মিলন মন্ডলের (৩৫) ও তার স্ত্রী অনিতা মন্ডল (২৮) তে‌লিপাড়া গ্রা‌মের বা‌সিন্দা। বর্তমা‌নে তা‌রা শরীয়তপুর সদর হাসপাতা‌লে চি‌কিৎসাধীন র‌য়ে‌ছে।

স্থানীয় ও অ‌ভি‌যোগ সূ‌ত্রে জানা যায়, ন‌ড়িয়া উপ‌জেলার চামটা ইউনিয়নের তেলিপাড়া গ্রামের বা‌সিন্দা মিলন মন্ডলের জ‌মিতে ধান পাকায় প্র‌তি‌বে‌শি মজিদ শেখের পরিবারকে ক‌য়েক‌দি‌নের জন্য পা‌লিত হাঁস বেঁ‌ধে রাখার আনু‌রোধ জানান। ‌কিন্তু মিলন মন্ড‌লের অ‌নু‌রোধ না শু‌নে হাঁস ছে‌ড়ে দেন মজিদ শেখের পরিবার। গতকাল তা‌দের পা‌লিত হাঁসগু‌লো মিলন মন্ড‌লের ক্ষে‌তের জ‌মি‌তে হাঁসগু‌লো দেখ‌তে পান। পরব‌র্তীতে হাঁসগু‌লো‌কে ধাওয়া দি‌য়ে স‌ড়ি‌য়ে দেওয়ার চেষ্টা ক‌রে মিলন মন্ডলের প‌রিবার। এ‌তে ক্ষিপ্ত হ‌য় হাঁ‌সের মা‌লিক প্রভাবশালী মজিদ শেখের পরিবার।

আহত মিলন মন্ড‌লের স্ত্রী অনিতা মন্ডলের অ‌ভি‌যোগ ব‌রে ব‌লেন, হাঁ‌সে ক্ষে‌তের পাকা ধান খাওয়ার সময় তাড়া দেওয়ায় আমার স্বামী‌কে বা‌ড়ি ফেরার প‌থে একা পে‌য়ে মারপিট ক‌রে প্র‌তি‌বে‌শী মোর্শেদ শেখ (৩০), বিল্লাল শেখ (২৫), সোলাইমান শেখ (২২)। তার ডাক চিৎকা‌রে আশেপা‌শের লোকজন ‌গি‌য়ে বাধা দি‌লেও আমার স্বামী‌কে অ‌নেক মার‌পিট করা হ‌য়েছে। খবর পে‌য়ে আমি স্বামী‌কে বাঁচা‌তে গি‌য়ে ও‌দের হা‌তে মাইর খে‌য়ে‌ছি। একপর্যা‌য়ে আহ‌তদের নাক ও মুখ গুরুত্বর জখম হ‌য় তারপ‌রেও ওরা মার‌পিট করে‌ছে।

এ বিষ‌য়ে জান‌তে অ‌ভিযুক্ত মজিদ শেখের সা‌থে যোগা‌যো‌গে চেষ্টা করা হ‌লেও তা‌কে বা‌ড়ি‌তে পাওয়া যায়‌নি।

এ ঘটনায় ৩ জন‌কে আসামি ক‌রে আজ শ‌নিবার ন‌ড়িয়া থানায় এক‌টি অ‌ভি‌যোগ দা‌য়ের ক‌রে‌ছে ভুক্তভুগী প‌রিবার‌।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অবনী শংকর কর বলেন, অভিযোগ পাওয়ার প‌রে পু‌লিশ ঘটনাস্থলে পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছে। তদন্তপূর্বক প্র‌য়োজ‌নীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হ‌বে।

এ‌ নি‌য়ে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট শরীয়তপুর জেলা শাখার পক্ষ থেকে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হ‌য়ে‌ছে। পাশাপা‌শি অনতিবিলম্বে দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদানের জোর দাবীও জানানো হয়।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন