সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভারতের মতো পরিস্থিতিতে আমরা পড়তে চাই না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

৩:১৭ অপরাহ্ন | রবিবার, মে ২, ২০২১ জাতীয়
jahid

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- টানা লকডাউনের মধ্যে দেশে করোনাভাইরাসের শনাক্তের হার কিছুটা কমে আসলেও আত্মতুষ্টিতে ভোগার কোনো সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে রোবাবার এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা আবার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কেন পড়লাম, সেটা আমাদের জানা থাকতে হবে। আমরা স্বাস্থ্যবিধি মানিনি, বেপরোয়াভাবে বাইরে ঘুরে বেড়িয়েছি। বিয়ে-শাদী করেছি, পিকনিকে গিয়েছি, সব মিলিয়ে দ্বিতীয় ঢেউটা এলো। পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও এই দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ভারতের মতো পরিস্থিতিতে আমরা পড়তে চাই না। আমাদের এখনই সতর্ক হতে হবে। মাস্ক, সেনিটাইজারসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, আমাদের ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরা যেভাবে দিনরাত পরিশ্রম করছে, তাদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা সবসময় আছে। আমরা একসঙ্গে কাজ করছি, আমরাও এই সংগ্রামের একজন সদস্য। আমরা আপনাদের সকলের পাশে আছি।

টিকা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমাদের জন্য টিকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল, যেহেতু ভারত থেকে আসছে না। তাই আমরা চীনের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা করছি। তারা আমাদেরকে শুরুতে ৫ লাখ টিকা দেবে। তাদের টিকা কিছুদিনের মধ্যেই দেশে চলে আসবে। আরও টিকার ব্যবস্থা রাশিয়া থেকে হচ্ছে। তাদের সঙ্গে আলোচনা অনেক দূর এগিয়েছে। আশা করি আমাদের টিকা কর্মসূচি চলমান থাকবে।

মন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যসেবা বিরাট একটি বিভাগ, এটি অনেকেই বুঝতে পারে না। আমরাও বুঝতে পারিনি। পৃথিবীর কোনো দেশই স্বাস্থ্যসেবাকে গুরুত্ব দেয়নি। এতদিন তারা মানুষ হত্যায় বোম, মারণাস্ত্র তৈরি করায় সব বিনিয়োগ করেছে। মানুষকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য সেরকম বিনিয়োগ তারা করেনি। এটার প্রমাণ পাওয়া গেল করোনার কারণে ভাইরাসের সময়ে। ভাইরাসটি পুরো পৃথিবীকে নাড়িয়ে দিয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, আমরা আপনাদের সবাইকে নিয়েই করোনা মোকাবিলা করছি। শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনা মোকাবিলায় আমরা সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিলাম। আমরা প্রথমে ভালোভাবে মোকাবিলা করেছি। যা যা প্রয়োজন ছিল, হাসপাতাল তৈরি করা থেকে শুরু করে বেড সংখ্যা বাড়ানো, সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন তৈরি করা, হাই ফ্লো নাজাল ক্যানোলা স্থাপন করাসহ সবকিছুই আমরা করেছিলাম। কিন্তু আমাদের বেপরোয়া চলাফেরায় আবার সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে।