🕓 সংবাদ শিরোনাম

চুয়াডাঙ্গায় ৬ বছ‌রের শিশুকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত যুবক গ্রেফতারলাথি দেওয়া সেই শিক্ষক ছেলের আইনানুগ বিচার চান বাবামানিকগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় চেয়ারম্যান গ্রেফতারহামলা ঠেকাতে প্রশাসন ব্যর্থ নাকি গাফিলতি, প্রশ্ন ইনুরগোপালগঞ্জে পিকআপ ভ্যান ও নসিমনের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত ২লিটারে ৭ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেলের দামযুবলীগ চেয়ারম্যানের নম্বর ক্লোন করে প্রতারণা, মূলহোতাসহ গ্রেফতার ২ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর বিকৃত ছবি শেয়ার করায় সাংবাদিক গ্রেপ্তারহিন্দু ভাই-বোনদের ভয় নাই, পাশি আছি: ওবায়দুল কাদেরসহিংসতায় দায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

  • আজ বুধবার, ৪ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২০ অক্টোবর, ২০২১ ৷

ভারতের বিপদজনক বার্তা থেকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে: কাদের

kader
❏ রবিবার, মে ২, ২০২১ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমাদের এখন সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে প্রতিবেশী ভারতের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হারের বিপদজনক বার্তা থেকে।

রোববার (২ মে) সিলেট জোন, বিআরটিসি ও বিআরটএ’র কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন থেকে সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হন।

করোনাকে বোঝা বড়ই মুশকিল, কখন কী রূপ ধারণ করে বোঝা যায় না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রায় চলে গিয়েছিল, সেই করোনা এখন ভয়ংকর রূপ নিয়েছে। আমাদের আরও মনোযোগী হতে হবে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনেও ওপর। স্বাস্থ্যবিধি ও শতভাগ মাস্ক পরার কোনও বিকল্প নেই।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভারতে আজকে কী অবস্থা, অক্সিজেনের জন্য হাহাকার। হাসপাতালে যাওয়ার আগেই মানুষ মারা যাচ্ছে। হাসপাতালের মধ্যেই অক্সিজেনের অভাবে মানুষ মারা যাচ্ছে। তাদের শ্মশান ও কবরস্থান খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পার্কে পর্যন্ত মরদেহ দাহ করা হচ্ছে। প্রতিবেশী ভারতের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বিপজ্জনক বার্তা দিচ্ছে। এই বার্তা থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। সতর্ক থাকতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে।’

ভ্যাকসিনের জন্য উদ্বেগের কোনও কারণ নেই জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভ্যাকসিনের যে ঘাটতি পড়বে তা পূরণে ইতোমধ্যে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনও কারণ নেই। আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আল্লাহর প্রতি আস্থা রাখুন। শেখ হাসিনার প্রতি বিশ্বাস রাখুন। আমরা যদি স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে চলি এই দুঃসময় একদিন কেটে যাবে ইনশাআল্লাহ।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, গতকাল পদ্মাসেতুর মাওয়া প্রান্তে ভায়াডাক্টের সর্বশেষ গার্ডার স্থাপনের মধ্য দিয়ে পুরো সেতুর স্ট্রাকচারের কাজ শেষ হয়েছে। এ পর্যন্ত মূলসেতুর নির্মাণ কাজের অগ্রগতি শতকরা ৯৩ দশমিক দুই পাঁচ শতাংশ। নদী শাসন কাজের অগ্রগতি শতকরা ৮৩ শতাংশ এবং প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি শতকরা ৮৫.৫ শতাংশ। আগামী ২০২২ সালের জুন মাসে পদ্মাসেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

সিলেট বিআরটিএ-কে দুর্নীতির অনিয়ম থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সংশ্লিষ্টদের কঠোর নির্দেশ দেন তিনি।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন