🕓 সংবাদ শিরোনাম

চুয়াডাঙ্গায় ৬ বছ‌রের শিশুকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত যুবক গ্রেফতারলাথি দেওয়া সেই শিক্ষক ছেলের আইনানুগ বিচার চান বাবামানিকগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় চেয়ারম্যান গ্রেফতারহামলা ঠেকাতে প্রশাসন ব্যর্থ নাকি গাফিলতি, প্রশ্ন ইনুরগোপালগঞ্জে পিকআপ ভ্যান ও নসিমনের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত ২লিটারে ৭ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেলের দামযুবলীগ চেয়ারম্যানের নম্বর ক্লোন করে প্রতারণা, মূলহোতাসহ গ্রেফতার ২ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর বিকৃত ছবি শেয়ার করায় সাংবাদিক গ্রেপ্তারহিন্দু ভাই-বোনদের ভয় নাই, পাশি আছি: ওবায়দুল কাদেরসহিংসতায় দায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

  • আজ বুধবার, ৪ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২০ অক্টোবর, ২০২১ ৷

মধ্যরাতে বিধবা নারীর ঘরে মেম্বার, সকালে করতে হলো বিয়ে

Mymensing news
❏ সোমবার, মে ৩, ২০২১ ময়মনসিংহ

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টারঃ ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে সাইফুল ইসলাম নামে এক ইউপি সদস্যকে  মধ্যরাতে বিধবা নারীর ঘর থেকে আটক করে স্থানীয়রা। কাজী ডেকে ৩ লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকার দেনমোহর ধার্য্য করে বিয়েও সম্পন্ন করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ আসার আগেই ওই বিধবা নারীকে নিয়ে চলে যান ইউপি সদস্য।

ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের বালিহাটা গ্রামে। এ নিয়ে এলাকায় চলছে নানা আলোচনা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের বালিহাটা গ্রামের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম চার সন্তানের জনক। ওই বিধবা নারীর স্বামী প্রায় পাঁচ বছর আগে মারা গেছে। তবে তার দুটি সন্তান রয়েছে। এই সুযোগে বিধবা ভাতার কার্ড দেওয়ার আশ্বাসে বিধবা নারীর সাথে গড়ে তোলেন সর্ম্পক। শনিবার (১মে) রাতে ওই বিধবা নারীর ঘরে সাইফুল প্রবেশ করে। বিষয়টি এলাকার লোকজনকে টের পেয়ে রাত ১২টার পর ওই নারীর ঘরের দরজায় তালা লাগিয়ে সাইফুল ইসলাম ও নারীকে আটকে রাখে এলাকাবাসী। এমন লজ্জাজনক ঘটনা থেকে রেহাই পেতে বিধবা নারীকেই বিয়ে করতে রাজি হন তিনি।

এমতাবস্থায় রবিবার (২ মে) সকালে বিধবা নারীর সম্মতি নিয়ে কাজীর মাধ্যমে দুজনকে বিয়ে করিয়ে দেন স্থানীয়রা। কথা হয় বিয়ে পড়িয়ে দেওয়া কাজী মাহবুবের সাথে। তিনি জানান, সকালে আমাকে বাসা থেকে ডেকে আনা হইছে। এসে জানতে পারি মেম্বার ও ওই বিধবা নারীকে বিয়ে পড়াতে হবে। এ অবস্থায় দুজনের সম্মতিতেই বিয়ে পড়ানো হয়।

এ ঘটনার বিষয়ে জানতে ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলামের মোবাইল নম্বরে কয়েকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের মিয়া বলেন, বিধবা নারীর সাথে ইউপি সদস্যকে স্থানীয়রা আটকের পর দুজনেই বিয়ে করতে রাজি হয়। সকালে তাদের বিয়ে হয়। তবে ঘটনাটি আমরা জানতে পেরে পুলিশ পাঠিয়ে ছিলাম। পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার  আগেই ওই নারীকে নিয়ে চলে যান ইউপি সদস্য।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন