🕓 সংবাদ শিরোনাম

কর্মীদের আন্দোলনের দিবাস্বপ্ন দেখাচ্ছে বিএনপি: ওবায়দুল কাদেরকরোনাকালে নার্সদের উৎসাহ-অনুপ্রেরণা দিতে বিভিন্ন হাসপাতালে ছুটে যাচ্ছেন মহাপরিচালকপ্রকাশ্যে একই পরিবারের ৩ জনকে গুলি করে হত্যা, হামলাকারী এএসআই আটকযমুনা নদীর তীররক্ষা বাঁধের নির্মাণ কাজ শুরু হবে ৬ মাসের মধ্যেপাবনার চাটমোহরে সড়ক দুর্ঘটনায় বৃদ্ধের মৃত্যুআশুলিয়ায় মহাসড়ক থেকে শ্রমিকদের সরাতে পুলিশের টিয়ার শেল-জলকামান, নিহত ১দিনেদুপুরে প্রকাশ্যে গুলি করে একই পরিবারের ৩ জনকে হত্যানেতানিয়াহুর জন্য ১০ বছরের কারাদণ্ড অপেক্ষা করছে: আইনজীবীদক্ষিণ কেরানীগঞ্জে ১৯ কেজি গাঁজাসহ আটক ৩শায়েস্তাগঞ্জে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ট্রেনে কাটা পড়ে ২ যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু

  • আজ রবিবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৩ জুন, ২০২১ ৷

করোনা আক্রান্ত হয়ে ভারতের সাবেক মন্ত্রীর মৃত্যু

oji
❏ বৃহস্পতিবার, মে ৬, ২০২১ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভারতের রাষ্ট্রীয় লোক দল বা আরএলডি প্রধান অজিত সিং বৃহস্পতিবার সকালে গুরুগ্রামের এক বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। মৃত্যকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। তিনি তিন দফায় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের মন্ত্রী ছিলেন।

এপ্রিল মাসের ২০ তারিখ করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের এই নেতা। তবে গত মঙ্গলবার রাত থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। ফুসফুসে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। এরপর থেকে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

অজিতের ছেলে সাবেক এমপি জয়ন্ত চৌধুরী টুইটারে বাবার মৃত্যুসংবাদ জানিয়ে লেখেন, শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই করে আজ সকালে তিনি মারা গেছেন।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, অজিতের বাবা প্রয়াত সাবেক প্রধানমন্ত্রী চৌধুরী চরণ সিংহ ছিলেন পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের জাঠ বলয়ের অবিসংবাদিত নেতা। কিন্তু অজিত রাজনীতি দিয়ে তার কর্মজীবন শুরু করেননি।

ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করার পর আইবিএম এর মতো বহুজাতিক সংস্থায় চাকরি শুরু করেন। আশির দশকের গোড়ায় তার রাজনীতিতে প্রবেশ। প্রথমে বাবার হাতে গড়া লোকদল এবং পরবর্তী পর্যায়ে জনতা দলে।

১৯৮৯ সালে প্রধানমন্ত্রী ভি পি সিংহের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ফ্রন্ট সরকারে প্রথম মন্ত্রিত্ব পেয়েছিলেন অজিত। নব্বইয়ের দশকে কংগ্রেসে যোগ দিয়ে পি ভি নরসিংহ রাও সরকারের মন্ত্রীও হন।

এর পর নিজের দল আরএলডি গড়ে অটলবিহারী বাজপেয়ীর নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার এবং প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহে ইউপিএ জোটের মন্ত্রিসভাতেও ঠাঁই পেয়েছিলেন অজিত।

চরণের শক্ত ঘাঁটি বাগপত লোকসভা কেন্দ্র থেকে নিজে ৬ বার জেতার পাশাপাশি মথুরা থেকে ২০০৯ সালে জিতিয়ে এনেছিলেন নিজের ছেলে জয়ন্তকেও।

২০১৩ সালে মুজাফফরনগর হিংসার জেরে পশ্চিম উত্তর গোষ্ঠীহিংসার জেরে ভোটের মেরুকরণের সুফল পায় বিজেপি। অজিত এবং তার ছেলে হেরে যান।