• আজ সোমবার, ৩১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৪ জুন, ২০২১ ৷

সৌদি আরবে ১৭ মে থেকে বাংলাদেশী প্রবাসীসহ সকল পর্যটকের প্রবেশ উন্মুক্ত

Soudiarabia news
❏ রবিবার, মে ৯, ২০২১ আন্তর্জাতিক

সৌদিআরব : আগামী ১৭ মে থেকে সৌদি আরব আসতে পারবেন বাংলাদেশী প্রবাসী এবং  পর্যটকরা। এ বিষয়ে নিশ্চিত করে দেশটির পর্যটন মন্ত্রী প্রিন্সেস হাইফা আল সৌদ বলেছেন যে,১৭ মে থেকে সৌদিআরবে সকল পর্যটকদের প্রবেশ গ্রহণ উন্মুক্ত করা হবে|

সরাসরি প্রশ্ন শিরোনামে একটি টেলিভিশন প্রোগ্রামে যোগ দিয়ে সৌদির পর্যটনমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, প্রায় ৯৩ টি নতুন সংস্থাগুলি সৌদির পর্যটন বাজারে প্রবেশ করেছে এবং করোনা ভাইরাসের প্রভাব মোকাবেলায় সরকার এই সংস্থার জন্য প্রণোদনা হিসাবে ১৫০ বিলিয়ন সৌদি রিয়াল সরবরাহ করেছে। যার ফলে গত গ্রীষ্মের তুলনায় পর্যটন খাতে অভ্যন্তরীণ ব্যয় হিসেবে ৩৩ শতাংশতে গিয়ে দাঁড়িয়েছে |

প্রিন্সেস হাইফা  জানান যে, সৌদি আরবের পর্যটন খাতটি ১৯৯৯ সালে বিদেশী পর্যটকদের গ্রহণ শুরু করেছিল। করোনা ভাইরাস মহামারী চলাকালীন সময়ে  আমাদের প্রথম কাজটি ছিল সৌদি আরবের নাগরিক এবং প্রবাসীদের সুরক্ষা প্রদান করা।আমরা ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে সক্ষম হয়েছি এবং  একটি পর্যায়ে পৌঁছেছি। যার জন্য আমাদের স্থল, জল ও বিমানবন্দরগুলি খুলতে আর কোন বাধা নেই |

পর্যটন খাতের জন্য সৌদি আরবের লক্ষ্যমাত্রা উল্লেখ করে প্রিন্সেস হাইফা বলেন: ২০১৩ সালে মোট  উৎপাদনে (জিডিপি) পর্যটন খাতের অবদান ছিল ৩.২ শতাংশ,যা ব্যয়ের পরিমাণের এসআর ১৪৭ বিলিয়ন এর সমান এবং ২০১৯ এ এর ​​পরিমাণ দাঁড়ায় ১৬৯ বিলিয়ন। যা ৩.৫ শতাংশে বৃদ্ধি লাভ করতে সক্ষম হয় |

প্রিন্সেস হাইফার আরো বলেন, বিশ্ব পর্যায়ের জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান ৭.৯ শতাংশ। তবে পর্যটনসমৃদ্ধ দেশগুলিতে এটি ১০ ​​থেকে ১২ শতাংশের মধ্যে অবস্থান ।

২০৩০ সালের মধ্যে সৌদি আরবের পর্যটন বৈপ্লবিক ভাবে বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন। দেশটিতে বেশ কয়েকটি বড় পর্যটন প্রকল্প চলছে এবং যার ফলাফলে অদূর ভবিষ্যতে দেশটির পর্যটন খাত আরো সম্প্রসারিত হবে ।

পর্যটন খাতে বৈদেশিক বিনিয়োগের পরিমাণ ৩০ বিলিয়ন, আগামী দুই বছরের মধ্যে মোট  প্রায় ৫০,০০০ নতুন হোটেল রুম চালু হবে।   যা পর্যটন খাতে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে  গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।