• আজ সোমবার, ৩১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৪ জুন, ২০২১ ৷

গ্রেফতার নয়, জিজ্ঞাসাবাদের জন্যেই বাবুল পিবিআই হেফাজতে

Babul
❏ বুধবার, মে ১২, ২০২১ আলোচিত

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক: চট্টগ্রামের চাঞ্চল্যকর মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের গ্রেফতারের বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে উঠে আসলেও পুলিশ বলছে মামলার বাদী  হিসেবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যেই তাকে আনা হয়েছে। তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মামলার বাদী হিসেবে তাকে ওই মামলায় গ্রেফতারের আইনি কোনো সুযোগ নেই।

এর আগে মঙ্গলবার (১১ মে) সকালে বাবুল আক্তার চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী এলাকায় পিবিআই চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ে যান। সেখানে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক (মেট্রো) সন্তোষ কুমার চাকমাসহ ঊর্ধ্বতন পর্যায়ের একটি টিম বিভিন্ন বিষয়ে জিজজ্ঞাসাবাদ করেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে। তবে এ বিষয়ে কঠোর গোপনীয়তা বজায় রাখছে পিবিআই।

পিবিআই পরিদর্শক (মেট্রো) সন্তোষ কুমার চাকমা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, মামলার বাদী হিসেবে বাবুল আক্তারের সঙ্গে তারা শুরু থেকে যেভাবে কথাবার্তা বলছেন, সেটি অব্যাহত আছে। বাবুলকে আটক কিংবা গ্রেফতারের বিষয়ে তিনি বলেন, সুযোগ নেই।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছেন, পিবিআইয়ের নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজির হয়েছেন। এজন্য সোমবার তিনি ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে পৌঁছেন।

একই সূত্রের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মামলার বাদীকে সরাসরি ওই মামলায় আটক বা গ্রেফতার করার কোনো সুযোগ নেই। তিনি যদি এই মামলায় দোষী হয়ে থাকেন বলে পুলিশ তথ্যপ্রমাণ পায়, সেক্ষেত্রে আগের মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে। এরপর নতুন মামলা দায়ের করে আগের মামলার বাদীকে আসামি দেখিয়ে আদালতকে অবহিত করে গ্রেফতার করতে হবে তাকে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে নগরীর পাঁচলাইশ থানার ও আর নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে বাসার অদূরে গুলি ও ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয় মিতুকে। এই ঘটনায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

২০১৬ সালে হত্যাকাণ্ডের বছরখানেক পর থেকেই মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন দাবি করে আসছিলেন, বাবুল আক্তারের পরিকল্পনায় ও নির্দেশে তার মেয়ে মিতুকে খুন করা হয়েছে।