🕓 সংবাদ শিরোনাম

প্রকাশ্যে একই পরিবারের ৩ জনকে গুলি করে হত্যা, হামলাকারী এএসআই আটকযমুনা নদীর তীররক্ষা বাঁধের নির্মাণ কাজ শুরু হবে ৬ মাসের মধ্যেপাবনার চাটমোহরে সড়ক দুর্ঘটনায় বৃদ্ধের মৃত্যুআশুলিয়ায় মহাসড়ক থেকে শ্রমিকদের সরাতে পুলিশের টিয়ার শেল-জলকামান, নিহত ১দিনেদুপুরে প্রকাশ্যে গুলি করে একই পরিবারের ৩ জনকে হত্যানেতানিয়াহুর জন্য ১০ বছরের কারাদণ্ড অপেক্ষা করছে: আইনজীবীদক্ষিণ কেরানীগঞ্জে ১৯ কেজি গাঁজাসহ আটক ৩শায়েস্তাগঞ্জে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ট্রেনে কাটা পড়ে ২ যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যুটিকার ঘাটতি দূর না হলে সামনে বিপদ: জাতিসংঘ মহাসচিববেইজ্জতিতে পড়েছে বিসিবি, ভয়ে ফোন ধরছেন না পাপন

  • আজ রবিবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৩ জুন, ২০২১ ৷

একটা কার্ড করে দেনা বাজান, খেয়ে বাঁচি ! 

Shanti Khanom pic
❏ রবিবার, মে ১৬, ২০২১ ঢাকা

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: শান্তি খানম (৭৮)। নামটা “শান্তি” হলেও তাঁর জীবনে শান্তি কথাটা যেন বড় বেশি বেমানান। জন্ম থেকেই দুঃখ-কষ্ট যেন পিঁছু ছাড়ে না তাঁর। সেই কত বছর হলো স্বামী হারা সংসার। দুঃখ-কষ্ট লেগে আছে সবসময়। আপনজন বলতেও তেমন কেউ নেই। তাইতো বেঁচে থাকার স্বপ্নটাও আজকাল বড় বেশি ক্ষীণ হয়ে গেছে। তার ভাষ্য, পৃথিবীতে শান্তি বলে কোনো কথা নেই। শান্তিটা লেখা হয়েছে যেন টাকাওয়ালাদেরই জন্য। গরীব হয়ে জন্ম গ্রহণ করাটাই বুঝি ছিলো বড় পাপ।

ফরিদপুর শহরের কুঠিবাড়ী কমলাপুরের শেখ জামাল স্টেডিয়ামের পাঁশের একটি ঝুঁপড়ি ঘরে কোনো রকম মাথা গুঁজেন শান্তি খানম।

তিনি বলেন, “হুনেছি কত মানুষ বয়স্ক ভাতা পায়। এত বয়স হলো আমিতো এট্টা (একটা) কার্ড পেলাম না-রে বাজান। এট্টা কার্ড করে দে-না আমারে, খেয়ে বাঁচি! কত মানসের কাছে গেছি এট্টা (একটা) কার্ডের লাইগা, কেউ দেয়না-রে বাজান। এহন আর কারো কাছে যাইনা। কারণ, কেউ কতা দিয়ে কতা রাহেনা।”

ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: মাসুম রেজা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া আমাদের দ্বিতীয় ধাপের যে ঘরগুলো আসছে, সেখানে আমরা তার মতো অসহায় ও হতদরিদ্রদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে পারবো এবং পাঁশাপাশি ওনার যদি খাবার-দাবারের কোনো সংকট থাকে সেটিও আমাদের প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্বক সহযোগিতা করা হবে।