সৌদি ফিরতে বাংলাদেশি প্রবাসীদের গুনতে হবে অতিরিক্ত টাকা

corona
❏ বুধবার, মে ১৯, ২০২১ প্রবাসের কথা

আব্দুল্লাহ আল মামুন, সৌদিআরব থেকে: সৌদি সরকারের নতুন নিয়মের কারণে বাংলাদেশ থেকে সৌদিআরব আসতে সাত দিন নিজ খরচে হোটেল কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

আর এসবের জন্য বাংলাদেশি প্রবাসী যাত্রীগণদের নিজ খরচ বহন করতে হবে অতিরিক্ত প্রায় ৫৫ হাজার টাকা। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সৌদি সরকার এই আইন ২০ মে থেকে কার্যকর করবে বলে নিশ্চিত করেছে।

গত ১০ মে সৌদি সরকার এই আইন সৌদি আরবের জেনারেল অথরিটি অব সিভিল এভিয়েশন বিভিন্ন এয়ারলাইন্সকে অবহিত করেছে। এবং এখনও যারা করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেয়নি, তাদের সৌদি আরবে প্রবেশের পর নিজ খরচে সাত দিন হোটেলে বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

সৌদিআরব আগত সকল যাত্রীদের মেডিক্যাল ইন্স্যুরেন্স থাকতে হবে, যাতে করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে চিকিৎসা ব্যয় ইন্স্যুরেন্সের আওতায় বহন করা সম্ভব হয়। যাত্রীদের বাধ্যতামূলক সাতদিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য হোটেল বুকিং এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরিশোধ করার নির্দেশনাও দিয়েছে জেনারেল অথরিটি অব সিভিল এভিয়েশন|

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে যে, সৌদি আরব যাওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর পদ্ধতিতে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসলে ঢাকা থেকে ফ্লাইট যোগে যাত্রীদের বোর্ডিং ইস্যু করানো হবে। সৌদিতে পৌঁছানোর পর যাত্রীকে আরও দু’বার করোনা টেস্ট করতে হবে। প্রথমবার করতে হবে সৌদি আরবে পৌঁছানোর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে, ষষ্ঠ দিনে আবারও করোনা টেস্ট করতে হবে। টেস্ট করার খরচ যাত্রীকেই বহন করতে হবে। দুই বার টেস্টে নেগেটিভ রিপোর্ট আসলে হোটেল কোয়ারেন্টিন থেকে ৭ম দিনে নিজ অবস্থান যাওয়ার অনুমতি মিলবে।

এবং যারা ভ্যাকসিন নিয়েছে তাদের ভ্যাকসিন নেওয়ার প্রমাণপত্র সঙ্গে রাখতে বলা হয়েছে। তবে ফাইজার-বায়োএনটেকের ২ ডোজ, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২ ডোজ, মডার্না ২ ডোজ এবং জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার ১ ডোজ যারা নিয়েছেন তারা হোটেলে বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকার বদলে বাসায় কোয়ারেন্টিনে থাকার অনুমিত প্রদান করা হবে।