🕓 সংবাদ শিরোনাম

নোয়াখালীতে ২৪ ঘন্টায় ১১৫ জনের দেহে করোনা, শনাক্তের হার ২৮.৬ শতাংশসৌদিতে অবৈধভাবে প্রবেশ করলে ১৫ বছরের জেল ও জরিমানার ঘোষণামাদারীপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত শ্রমিকলীগ সভাপতির মৃত্যুভয়ংকর হচ্ছে খুলনা বিভাগ, একদিনেই রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যুটাঙ্গাইলে নতুন করে ১৪৯ জন করোনায় আক্রান্ত, ৩ জনের মৃত্যুইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্সে কেনাকাটায় নিষেধাজ্ঞা দিলো ব্র্যাক ব্যাংকনওমুসলিম ওমর ফারুক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন-সংবাদ সম্মেলন, ৬ দফা দাবিআ.লীগ অতীতে জনগণের সঙ্গে ছিল, ভবিষ্যতেও থাকবে : কাদের২৪ ঘন্টায় রাজশাহী মেডিকেলের করোনা ওয়ার্ডে ১৬ জনের মৃত্যুইভ্যালির সম্পদ ৬৫ কোটি, দেনার পরিমাণ ৪০৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা

  • আজ বুধবার, ৯ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৩ জুন, ২০২১ ৷

সুনামগঞ্জে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বই বিক্রি,শিক্ষককে শোকজ, তদন্ত কমিটি গঠন

Sylhet news
❏ বুধবার, মে ১৯, ২০২১ সিলেট

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া,  সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার প্রায় ৬০০ কেজি ওজনের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন বই ও কার্টন বিক্রয়কৃত মালামাল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় বই ক্রয়ের সঙ্গে জড়িত ভ্যানচালক মোঃ শহীদ মিয়াকে (২০) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ।

ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বুধবার শোকজ করা হয়েছে। তিন কার্যদিবসের মধ্যে তাকে জবাব দিতে বলা হয়েছে। বিষয়টি কতৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলে জানান উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মর্কতা মানবেন্দ্র দাস।

এ ঘটনায় কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামকে প্রধান করে দুই সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার (১৮ মে) রাতে উপজেলার পাইকুরাটি ইউনিয়নের বেরিকান্দি বড়খলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়ক সংলগ্ন সেতুর উপর থেকে বই সহ এক জনকে আটক করে পুলিশ।

ধর্মপাশা থানার পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পাইকুরাটি ইউনিয়নের বেরিকান্দি বড়খলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী নূর খান গত মঙ্গলবার বিকেলে কেজিপ্রতি ৬ টাকা দামে ৬০০ কেজি বই ও কার্টন উপজেলার ফাতেমানগর গ্রামের বাসিন্দা ভ্যানচালক মোঃ শহীদ মিয়ার কাছে বিক্রি করেন। রাত ১০টার দিকে বই ও কার্টনগুলো বিদ্যালয় থেকে ভ্যানে করে বিদ্যালয়ের সামনের সড়ক সংলগ্ন সেতুর উপরে নিয়ে এলে স্থানীয় এলাকাবাসী ভ্যানচালকসহ বই ও কার্টনগুলো আটক করেন। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে পুলিশ সেখানে গিয়ে এসব মালামাল উদ্ধার ও ভ্যানচালককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

বেরিকান্দি বড়খলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী নূর খান বলেন, বিদ্যালয়ের পুরাতন বই ও কার্টনগুলো উপজেলা শিক্ষা অফিসে জমা দেওয়ার জন্য আনার ব্যবস্থা করেছিলাম। আমি এসব কারও কাছে বিক্রি করিনি।

তবে ভ্যানচালক শহীদ মিয়া দাবি করেন, তিনি প্রধান শিক্ষক আলী নূর খানের কাছ থেকে কেজিপ্রতি ৬ টাকা দামে এসব বই ও কার্টন কিনেছেন।

ধর্মপাশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খালেদ চৌধুরী বলেন, কালোবাজারে সরকারি বই বিক্রি হচ্ছে এমন খবর পেয়ে আমরা মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে গিয়ে এসব মালামাল জব্দ করেছি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক হওয়া ভ্যানচালককে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি ইউএনও স্যার ও উপজেলা শিক্ষা কর্মর্কতাকে লিখিতভাবে অবহিত করেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ মুনতাসির হাসান বলেন, এ ঘটনায় কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামকে প্রধান করে দুই সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর এ বিষয়ে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।