🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বুধবার, ২ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ১৬ জুন, ২০২১ ৷

রোজিনার প্রতি যাতে অন্যায় না হয়, তা দেখছি: তথ্যমন্ত্রী


❏ বুধবার, মে ১৯, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম যাতে সুবিচার পান, সেটি অবশ্যই সুনিশ্চিত করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, ‘যেহেতু একটি মামলা হয়েছে, তার যাতে সুবিচার হয়, তিনি যাতে ন্যায়বিচার পান, তার প্রতি কোনোভাবে যাতে অন্যায় না হয়, সেটি আমরা দেখছি, সরকারের ওপর আস্থা রাখুন। প্রধানমন্ত্রী ও আমি সাংবাদিকদের মানমর্যাদা ও সম্মান রক্ষায় আন্তরিক ও বদ্ধপরিকর।’

আজ বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের মধ্যে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে করোনাকালীন দ্বিতীয় পর্যায়ের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলা হয়।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিইউজের সভাপতি মোহাম্মদ আলী। সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলামের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাফর ওয়াজেদ। বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি আলী আব্বাস, বিএফইউজের সহসভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি অনিন্দ্য টিটু প্রমুখ।

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, এ ক্ষেত্রে গোপন নথি পাচার অন্যায়। ২০১৪ সালে তথ্য কমিশন গঠিত হওয়ার পর থেকে ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ১ লাখ ১৯ হাজার ৮৩১টি আবেদনের নিষ্পত্তি করা হয়েছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘যেকোনো মন্ত্রী বাংলাদেশে দুটি শপথ গ্রহণ করেন, একটি হচ্ছে মন্ত্রী হিসেবে শপথ, অন্যটি হচ্ছে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা রক্ষার শপথ; সে শপথ আমাকেও নিতে হয়েছে। যেহেতেু আমি রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তার শপথ গ্রহণ করেছি, মন্ত্রিসভায় কোনো কিছু আলোচনা হলে সেটি বাইরে বলতে পারি না। যেটি আমাকে বলতে বলা হবে শুধু সেটুকুই বলতে পারব।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় গোপন নথি বা অন্য দেশের সঙ্গে চুক্তি, যেগুলো বাইরে প্রকাশ না করার ক্ষেত্রে চুক্তিতে আছে বা সেই দেশের অনুরোধ আছে, সেগুলো কখনো বাইরে প্রকাশ করতে পারি না। সেটি সংরক্ষণ করা যেকোনো মন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব। এ ক্ষেত্রে গোপন নথি পাচার অন্যায়। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের মানমর্যাদা ও সম্মান রক্ষায় বদ্ধপরিকর এবং সাংবাদিকদের কল্যাণে যে কাজগুলো বাংলাদেশে করেছেন, সেটি অতুলনীয় ও অভাবনীয়। এ ক্ষেত্রে রোজিনা ইসলাম যাতে সুবিচার পান, সেটি অবশ্যই আমরা নিশ্চিত করব।’

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায় থাকলে বের হবে বলে জানিয়েছেন হাছান মাহমুদ। এ বিষয়ে বারবার স্বাস্থ্য, স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পুলিশ হেফাজতে তার সম্মান যাতে রক্ষা হয় এবং কারা হেফাজতে তিনি যাতে সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা পান, সেটি যাতে নিশ্চিত করা হয়, সে বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে আশ্বস্ত করেছেন। তিনি যাতে ন্যায়বিচার পান, সেটি অবশ্যই আমরা নিশ্চিত করব।