🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১১ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৫ জুন, ২০২১ ৷

সুপেয় পানির জন্যে গভীর নলকূপ স্থাপন করার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

Patuakhali news
❏ বৃহস্পতিবার, মে ২৭, ২০২১ বরিশাল

জাহিদ রিপন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি: জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বৃদ্ধি পাচ্ছে অত্যাধিক তাপমাত্রা। দেখা দিয়েছে ক্ষরা। ভূগর্ভস্থ পানির স্তর হ্রাস পাচ্ছে। বৃদ্ধি পাচ্ছে লবণাক্ততা। দেখা দিয়েছে অনাবৃাষ্টি। এর প্রভাবে খরা মৌসুমে দেখা দেয় ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাবসহ সুপেয় মিস্টি পানির সংকট। জলবায়ুর এমন রুদ্র রূপ থেকে জনসাধারনের জীবন রক্ষার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার লালুয়া, ডালবুগঞ্জ ও চম্পাপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদ্যসরা।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে এগারটায় কলাপাড়া প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন আভাস এলআরপির দুর্যোগে জরুরী সাড়াপ্রদানকারী নারী দলের সদস্য হাওয়া বেগম, মরিয়ম বেগম, অর্চনা রানী।

সংশ্লিস্ট এলাকায় বিশুদ্ধ ও সুপেয় পানির সংকট এবং ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাবের চিত্র তুলে ধরে তারা বলেন,   জলবায়ু পরিবর্তনের দীর্ঘমেয়াদী প্রভাবে প্রতি বছর এপ্রিল থেকে মে মাস পর্যন্ত এলাকা সমূহের ব্যক্তিগত পুকুর, সরকারি খাস পুকুর, খাল, বিল এবং জলাশয়ের পানি শুকিয়ে যায়। দূষিত হয়ে পানির রং পরিবর্তন এবং দুর্গন্ধযুক্ত হয়ে যায়। বৃষ্টিপাত না হওয়ায় ৩টি ইউনিয়নের ৬টি খাস পুকুর ও ৩২৪টি ব্যক্তিগত পুকুরের মধ্যে ৫৬টি পুকুর পুরোপুরি পানিশূন্য হয়ে পড়েছে।

পরিসংখ্যান তুলে ধরে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, লালুয়া ইউনিয়নে ১৮,৭৫০ জনের জন্য ২৭২টি, ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের ১০,৫৫৬ জনের জন্য ১১৩টি এবং চম্পাপুর ইউনিয়নের ১৫,২০৮ জনের জন্য ১১৮টি গভীর নলকূপ রয়েছে। যা জনসংখ্যার চাহিদার তুলনায় খুবই সামান্য। ফলে বিশুদ্ধ ও সুপেয় পানির সংকটে এবং তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে এসব এলাকায় দেখা দেয় ডায়রিয়ার প্রকোপ।

তাই সময়কালীন সুপেয় পানির ব্যবহার নিশ্চিত করতে এবং কৃষি জমিতে লবন পানির প্রবেশ আটকাতে কালভার্ট ও স্লুইজ গেট বন্ধ রাখার ব্যবস্থা করতে হবে। আর এজন্য স্থানীয় প্রশাসনকে অনতিবিলম্বে জরুরি পদক্ষেপ নিতে হবে। পাশাপাশি সুপেয় পানির সংকট দূরীকরণে এলাকাগুলোতে পর্যাপ্ত সংখ্যক গভীর নলকূপ স্থাপন করার দাবী জানান।