🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১১ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৫ জুন, ২০২১ ৷

কুয়াকাটা সৈকত রক্ষায় সাড়ে সাত শ’ কোটি টাকার প্রকল্প

minister
❏ মঙ্গলবার, জুন ১, ২০২১ দেশের খবর, বরিশাল

জাহিদ রিপন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি- ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্থ পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত পরিদর্শন করেছেন পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার। সোমবার বিকাল পাঁচটায় সৈকতের ভাঙন কবলিত স্থান ঘুরে দেখেন তিনি।

এসময় পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার বলেন, ’কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতের ভাঙ্গন রোধে সাড়ে সাতশ’ কোটি টাকার প্রকল্প সমীক্ষার কাজ শেষ করে অনুমোদনের জন্য জমা দেয়া হয়েছে। প্রকল্পটি অনুমোদন পেলে নেদারল্যান্ডস’র আদলে কুয়াকাটা সৈকত একটি আন্তর্জাতিক মানের সৈকত হিসেবে গড়ে উঠবে। প্রকল্পে সৈকত রক্ষার বাঁধ হবে সিজ অব গ্রোয়েন, স্যান্ড বীচ নরেশমেন্ট এবং মাল্টি ফাংশনাল এমব্যাংকমেন্ট। আগামী ডিসেম্বরে এ প্রকল্পের কাজ শুরু হবে।’

সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার আরোও বলেন, বাংলাদেশে জিও টিউবে বাঁধ রক্ষার কাজ সফল হওয়ায় দেশের ৬ টি অঞ্চলে জিও টিউবের মাধ্যমে বাঁধ রক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। কুয়াকাটা সৈকতের ভাঙন রক্ষায় বিশেষ একটি প্রকল্প প্রস্তুত হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর মাসে কুয়াকাটায় সিআইপি প্রকল্পের আওতায় বাঁধের উচ্চতা এবং প্রসস্ততার মাধ্যমে জিও টিউব দিয়ে স্থায়ী বাঁধ নির্মানের কার্যক্রম শুরু হবে।

এসময় তিনি আরও বলেন, ’ইয়াস ক্ষতিগ্রস্ত জরুরী বেড়িবাঁধ সংস্কারের কাজ চলবে। বর্ষা মৌসুম শেষ হলে দুর্যোগ প্রবন এলাকার বেড়িবাঁধ গুলো টেকসই করে নির্মাণ করা হবে। কোষ্টাল ইমপ্রুভমেন্ট এমব্যাংকমেন্ট প্রকল্পের অধীনে কলাপাড়ায় ১০টি পোল্ডারের বড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ শেষের পথে রয়েছে। আরও ১৭টি বেড়িবাঁধ টেকসই করে নির্মাণ করা হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে ১৩৯টি পোল্ডারে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা হবে।’

পরিদর্শনকালে তার সাথে ছিলেন পানি উন্নয়ন বোর্ড’র প্রধান প্রকৌশলী নুরুল ইসলাম সরকার, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মজিবুর রহমান, পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী, কলাপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান রাকিবুল আহসান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক সহকারী কমিশনার (ভূমি) জগৎবন্ধু মন্ডল, পাউবো’র কলাপাড়া নির্বাহী প্রকৌশলী হালিম সালেহী ও কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদারসহ প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা।

কুয়াকাটা সৈকত পরিদর্শন শেষে সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার মহিপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ নিজামপুর বেরিবাঁধ পরিদর্শন করেন। এর আগে তিনি বরগুনা জেলার ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন।