🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বুধবার, ৯ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৩ জুন, ২০২১ ৷

বগুড়ায় মধ্যরাতে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ‘ধর্ষণ’, অধ্যক্ষ গ্রেফতার

atok
❏ বুধবার, জুন ২, ২০২১ রাজশাহী

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় সপ্তম শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাও: আবদুর রহমান মিন্টু (৩২) নামের এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আবদুর রহমান মিন্টু উপজেলার বিহার ইউনিয়নের পার ল²ীপুর চাঁনপাড়ার মৃত সোলাইমান আলীর ছেলে। তিনি শিবগঞ্জ পৌর এলাকার বানাইল কলেজ পাড়ার হযরত ফাতেমা (রা.) হাফেজিয়া মহিলা মাদ্রাসার মুহতামিম (অধ্যক্ষ)।

২ জুন বুধবার দুপুর ১২টায় আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, মাদ্রাসাটি আবাসিক হওয়ায় সেখানে ১২ জন ছাত্রী একসঙ্গে হলরুমে থাকে। হলরুমের পাশেই সপরিবারে বাস করেন মাও. আবদুর রহমান মিন্টু। ঘটনার দিন ৩০ মে রাতে ছাত্রীরা সবাই খাওয়া শেষে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত প্রায় আড়াইটার দিকে মাও. মিন্টু হলরুমে প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেন এবং বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেন। পরদিন মেয়েটি বাড়িতে মোবাইলে ফোন করে কান্নাকাটি করে। এ কারণে পরিবার থেকে লোকজন গিয়ে মেয়েটিকে বাড়িতে নিয়ে যায়। বাড়িতে গিয়ে মেয়েটি তার দাদীকে বিস্তারিত ঘটনা জানায়।

এ ব্যাপারে মঙ্গলবার বিকেলে মেয়ের বাবা বাদী হয়ে আবদুর রহমান মিন্টুকে আসামি করে শিবগঞ্জ থানায় মামলা করলে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে রাতেই ওই শিক্ষককে গ্রেফতার করে।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলা দায়েরের পর তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে রাতেই মাদ্রাসা শিক্ষক মিন্টুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি মেয়েটিকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।