🕓 সংবাদ শিরোনাম

নোয়াখালীতে ২৪ ঘন্টায় ১১৫ জনের দেহে করোনা, শনাক্তের হার ২৮.৬ শতাংশসৌদিতে অবৈধভাবে প্রবেশ করলে ১৫ বছরের জেল ও জরিমানার ঘোষণামাদারীপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত শ্রমিকলীগ সভাপতির মৃত্যুভয়ংকর হচ্ছে খুলনা বিভাগ, একদিনেই রেকর্ড ৩২ জনের মৃত্যুটাঙ্গাইলে নতুন করে ১৪৯ জন করোনায় আক্রান্ত, ৩ জনের মৃত্যুইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্সে কেনাকাটায় নিষেধাজ্ঞা দিলো ব্র্যাক ব্যাংকনওমুসলিম ওমর ফারুক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন-সংবাদ সম্মেলন, ৬ দফা দাবিআ.লীগ অতীতে জনগণের সঙ্গে ছিল, ভবিষ্যতেও থাকবে : কাদের২৪ ঘন্টায় রাজশাহী মেডিকেলের করোনা ওয়ার্ডে ১৬ জনের মৃত্যুইভ্যালির সম্পদ ৬৫ কোটি, দেনার পরিমাণ ৪০৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা

  • আজ বুধবার, ৯ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৩ জুন, ২০২১ ৷

প্রতিদিন স্বামীকে খাবারের সাথে ঘুমের ঔষধ দিয়ে প্রেমিকের সাথে থাকতো স্ত্রী!

Sirajgonj news
❏ শুক্রবার, জুন ৪, ২০২১ রাজশাহী

রাজিব আহমেদ রাসেল, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: দিনের পর দিন স্বামীকে খাবারের সাথে ঘুমের ঔষধ খাওয়াতো স্ত্রী(৩০)। স্বামী ঘুমিয়ে গেলে পরকীয়া প্রেমিক ঘরে আসতো, সারারাত থাকার পর ভোর বেলা চলে যেত। এরকমই অভিযোগ করেছেন ওমর ফারুক (৩৫) নামের এক দিনমজুর।

ঘটনাটি ঘটেছে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের কৈজুরী ইউনিয়নের চর গুধিবাড়ি গ্রামে। এই বিষয়ে দিনমজুর ওমর ফারুক শাহজাদপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার কৈজুরী ইউনিয়নের চর গুধিবাড়ি গ্রামের মোঃ হাতেম আলীর ছেলে ওমর ফারুক প্রায় ২০ বছর পূর্বে একই উপজেলার এনায়েতপুর থানার জালালপুর ইউনিয়নের টোপপাড়া গ্রামের মৃত লালচাঁন সরকারের মেয়েকে বিয়ে করেন।

বিয়ের কিছুদিন পরেই ফারুক বাবা মায়ের থেকে আলাদা হয়ে বাড়ির পাশেই বাড়ি করে থাকা শুরু করেন। প্রায় ২০ বছরের সংসারে ২ মেয়ে ও ১ ছেলে সন্তান তাদের, বড় মেয়ের বিয়ে হয়ে তার ঘরে এক নাতি রয়েছে।

ওমর ফারুক জানান, আমি ধানকাটা শ্রমিকের কাজ করায় মাঝে মধ্যেই বিভিন্ন স্থানে গিয়ে মাসের পর মাস আমাকে থাকতে হয়। কয়েকদি পূর্বে গ্রামে ফিরলে বাবা মা ও এলাকাবাসীর কাছে জানতে পারি আমার স্ত্রী ও একই গ্রামের মৃত মতিন সরকারের ছেলে আলী সরকারের (৩৫) পরকীয়ার বিষয়ে জানতে পারি। তারা জানায় প্রতিরাতেই আলী সরকার আমার স্ত্রীর সাথে রাত্রীযাপন করে।

এ নিয়ে আমাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনমালিন্য চলছিল, গত রবিবার ৩০ মে রাতের খাবারের স্বাদ তেতো লাগায় আমি খাবার না খেয়ে আমার ঘুমন্ত স্ত্রীর পাশে শুয়ে পরি। রাত আনুমানিক ১টায় আমার ঘুম ভেঙে গেলে বিছায় হাত দিয়ে দেখি স্ত্রী বিছানায় নেই।

আমি দ্রুত ঘরের বৈদ্যুতিক আলো জালিয়ে দেখি আমার স্ত্রী ও আলী সরকার মেঝেতে অসামাজিক কাজে লিপ্ত রয়েছে। এরপর তাদের হাতে নাতে আটক করি, আলী সরকার আমাকে ঘুষি মেরে পালিয়ে যায়। পরদিন বিষয়টি আমার শশুরবাড়ির লোকজনকে জানালে তারা এসে আমার স্ত্রী ২ সন্তান নিয়ে যায়।

বিষয়টি এলাকার মাতব্বরদের জানানোয় আলী সরকার আমাকে ও আমার পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। প্রতিবেদকে ওমর ফারুক তার স্ত্রী ও আলী সরকারের মেলামেশার বেশ কিছু আলামত ও তার ব্যবহৃত স্যান্ডেল দেখায়।

ওমর ফারুকের পিতা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ আমার ছেলেকে ঘুমের ঔষধ খাওয়ানোর জন্য  আমার ছেলে শারীরিক ভাবে অনেক দুর্বল হয়ে গেছে। এই ঘটনা আমরা আগে থেকে জানলেও আলী সরকারের পরিবার গ্রামের মধ্যে প্রভাবশালী হওয়ায় আমরা ভয়ে কিছু বলতাম না।