• আজ সোমবার, ৩১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৪ জুন, ২০২১ ৷

১৮ দিনের রিমান্ড শেষে হেফাজত নেতা মামুনুল কারাগারে

mamunul
❏ শনিবার, জুন ৫, ২০২১ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে ৬ মামলায় ১৮ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

শনিবার (৫ জুন) দুপুর ১২টায় রিমান্ড শেষে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আলমের আদালতে তাকে হাজির করা হয়। পুলিশ কোন মামলায় পুনরায় রিমান্ড আবেদন না করায় আদালত মামুনুল হককে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বলেন, ‘১৮ মে ছয় মামলায় তদন্তকারী সংস্থা নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ, সিআইডি ও পিবিআই জিজ্ঞাসাবাদের মামুনুল হককে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে আসা হয়। প্রত্যেক মামলায় তিন দিন করে ১৮ দিনের রিমান্ড শেষে সকালে মামুনুলকে আদালতে হাজির করে পিবিআই।’

রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে জানতে চাইলে পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম বলেন, গত ২৮ এপ্রিল হেফাজতের ডাকা হরতালে সাইনবোর্ডে সহিংসতার ঘটনায় ভিডিও চিত্র থেকে হেফাজতের অনেক নেতাকে শনাক্ত করেছেন মামুনুল হক। জিজ্ঞাসাবাদে মামুনুল হক জানিয়েছেন যে তিনি হরতালের তিন দিন আগে ২৫ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জে এসেছেন, নেতা-কর্মীদের উজ্জীবিত করে গেছেন। হরতালের তিন দিন পর ৩১ এপ্রিলও তিনি নারায়ণগঞ্জে এসেছিলেন। জিজ্ঞাসাবাদে আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। সেগুলো যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম বলেন, ‘১৮ দিনের রিমান্ডে মামুনুল অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন। তিন তদন্তকারী সংস্থাকে নিয়ে এসব তথ্য যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। রোববার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করে সব কিছু জানানো হবে।’

উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করা এক নারীসহ সোনারগাঁয়ে রয়েল রিসোর্টে অবরুদ্ধ হন মামুনুল হক। পরে হেফাজতের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা রিসোটে হামলা-ভাঙচুর চালিয়ে মামুনুলককে ছিনিয়ে নিয়ে যান। এরপর ১৮ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদরাসা থেকে মামুনুল হককে গ্রেফতার করে পুলিশ।