🕓 সংবাদ শিরোনাম

যেকোনো সময় সারা দেশে ‘শাটডাউন’ ঘোষণা : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীসারা দেশে ১৪ দিনের ‘শাটডাউনের’ সুপারিশশাহজাদপুরে আনসার সদস্যের বিরুদ্ধে আদিবাসী নারীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগব্র্যাক-এশিয়ার পর ঢাকা ব্যাংক থেকেও নিষিদ্ধ ইভ্যালি!বগুড়ায় করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা একদিনে সব রেকর্ড ভেঙেছেসন্ধ্যা হলেই সৌর বিদ্যুতে আলোকিত হবে মির্জাপুর পৌরসভা২৪ ঘন্টায় শনাক্ত ছাড়াল ৬ হাজার, মৃত্যু ৮১ জনেরচুয়াডাঙ্গায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আশঙ্কাদেশে খাদ্যের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে: খাদ্যমন্ত্রীসিনহা হত্যা মামলার পলাতক আসামি কনস্টেবল সাগর দেবের আত্মসমর্পন

  • আজ শুক্রবার, ১১ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৫ জুন, ২০২১ ৷

বগুড়ায় করোনা সংক্রমণ রোধে নতুন বিধি-নিষেধ আরোপ

Corona news
❏ রবিবার, জুন ৬, ২০২১ রাজশাহী

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি: করোনার সংক্রমণ মোকাবেলায় এবং সীমান্তবর্তী জেলা সমূহে লকডাউনের পরিপ্রেক্ষিতে বগুড়ায় জনসাধারণের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিতের লক্ষে নতুন বিধি-নিষেধ জারি করেছে জেলা প্রশাসন।

শনিবার (০৫ জুন) রাতে বগুড়ার জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত এক গণবিজ্ঞপ্তিতে নতুন এ বিধি নিষেধের ব্যাপারে জানানো হয়। আজ রোববার (০৬ জুন) থেকে এ আদেশ কার্যকর হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

গণবিজ্ঞপ্তিতে যে সকল বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে- সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার পর অতি জরুরি প্রয়োজন ব্যাতীত (ওষুধ ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ইত্যাদি) কোনোভাবেই বাড়ীর বাহিরে বের হওয়া যাবে না। প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার পর খাবারের দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁসমূহ দোকানপাট, শপিংমলসমূহ, কাঁচাবাজার, খুচরা বাজারসহ সকল ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, যেখানে লোক সমাগম হয়, তা বন্ধ রাখতে হবে৷

খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁসমূহ কেবল খাদ্য বিক্রয় ও সরবরাহ (ঞধশবধধিু ঙহষরহব) করতে পারবে। কোনো অবস্থাতেই হোটেল-রেস্তোরায় বসে খাবার গ্রহণ করা যাবে না।

সামাজিক অনুষ্ঠানসহ সকল ধরণের গণজমায়েত বন্ধ থাকবে। সকল কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ থাকবে। সকল বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে। রাস্তা, পাড়ার মোড়ে চায়ের দোকান, ছোট পরিসরের রেস্তোরাঁসহ এ জাতীয় সকল স্থান সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার পর বন্ধ রাখতে হবে। কৃষি পণ্য, খাদ্য সামগ্রী পরিবহন এ আদেশের আওতা বহির্ভূত থাকবে।

সরকারের রাজস্ব আদায়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত সকল দপ্তর/সংস্থাসমূহ জরুরি পরিসেবার আওতাভুক্ত হবে। সকল ধরণের সরবারহ ব্যবস্থাপনা সচল থাকবে। উপরোক্ত বিধি-নিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।