• আজ বুধবার, ৯ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ২৩ জুন, ২০২১ ৷

ভালোবেসে বিয়ে, দেড় মাসের মাথায় লাশ হলেন নববধূ

fulbari thana
❏ মঙ্গলবার, জুন ৮, ২০২১ রংপুর

অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা- কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে স্বামী সঙ্গে অভিমান করে খুশি খাতুন (১৮) নামের এক নববধু বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন।

সোমবার (০৭ জুন) বিকালে উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের ধনীরাম গ্রামে এ ঘটনা  ঘটে। নিহত নববধু বড়ভিটা ইউনিয়নের ধনীরাম গ্রামের আব্দুর সাত্তারের মেয়ে ও একই ইউনিয়ণের ঘোগারকুটি গ্রামের মাসুস রানার স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, খুশি ও মাসুদ দুজন দুজনকে ভালবাসে। দুই পরিবারের আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে দেড় মাস আগে তাদের বিয়ে সম্পূর্ণ হয়। বিয়ের পর থেকেই ভালভাবেই চলছে দেড় মাসের সংসার জীবন। তবে খুশি খাতুন একটু জেদী ও অভিমানী প্রকুতির ছিল। খুশির বাবা একজন কীটনাশক ও সার ব্যবসায়ী।তার বাবার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রোববার হালখাতা শুরু হয়। হালখাতা উপলক্ষ্যে মেয়ে ও জামাইকে দাওয়াত করেন।

সেই হালখাতার দাওয়াত খেতে রোববার সকালে স্বামী মাসুদ রানার সঙ্গে বাবার বাড়ীতে আসে খুশি। সারাদিন মেয়ে জামাই শ্বশুরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হালখাতার অনুষ্ঠানের সব ধরণের সহযোগীতা করে। পরে মাসুদ রানা শ্বশুরবাড়ী থেকে রাতেই নিজ বাড়ীতে যান। আজ সোমবার সকালে স্ত্রী খুঁশকে নিতে আবারও শ্বশুরবাড়ীতে যান মাসুদ রানা। খাওয়া-দাওয়া শেষে স্ত্রীকে নিয়ে নিজ বাড়ীতে আসবে মাসুদ রানা। ঠিক এমন সময় স্ত্রী খুশি স্বামীর সঙ্গে তার শ্বশুরবাড়ী যাবেনা বলে জানান।

এনিয়ে দুই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথাকাটি হয়। এসময় শ্বশুর-শ্বাশুড়ি মেয়ে খুশিকে জামাইয়ের সাথে যাওয়ার কথা বললেও কোন ক্রমে খুশি স্বামীর সঙ্গে যেতে রাজি হয়নি। এর কিছুক্ষণ পর স্বামী-ও বাবা-মাসহ পরিবারের অজান্তে ঘরের দরজা বন্ধ করে বিষপানে আত্মহত্যা করে। পরে বিষয়টি বুঝতে পেরে ঘরের দরজা ভেঙে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক খুশিকে মৃত ঘোষণা করে।

ফুলবাড়ী থানার ওসি রাজীব কুমার রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।