🕓 সংবাদ শিরোনাম

রাজশাহী মেডিকেলের করোনা ইউনিটে আরও ১৭ জনের মৃত্যুশাহজাদপুরে একটি সেতুর অভাবে ঘুরে যেতে হয় ১০ কিলোমিটারস্কুল কলেজে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়াভাই’ দেখাতে নির্দেশচাঁদাবাজির মামলায় গ্রেপ্তার ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কারসরকারি গুদামে খাদ্যশস্য মজুদ আছে ১৬.৬৯ লাখ মেট্রিক টনসেচের অভাবে ত্রিশালে আমন চারা রোপণে দুশ্চিন্তায় কৃষকরাবিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনে ২৭৬ টি রয়েল বেঙ্গল টাইগারের হদিস নেই!শেরপুরে ব্রক্ষপুত্র নদীর ভাঙ্গন, বিলীন হচ্ছে ফসলি জমিব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত মাকে বাঁচাতে ছেলে ইনজেকশন খুঁজে হয়রান!ফরিদপুরে গায়ে পচনধরা রোগীকে বাঁশ ঝাড়ে ফেলে দিলো স্বজনরা, উদ্ধারে পুলিশ

  • আজ বৃহস্পতিবার, ১৪ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ২৯ জুলাই, ২০২১ ৷

ত্রিশালে ৪০ পরিবার পাচ্ছে স্বপ্নের ঠিকানা

house
❏ শনিবার, জুন ১৯, ২০২১ ময়মনসিংহ

মামুনুর রশিদ, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি- ময়মনসিংহের ত্রিশালে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৪০ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর।

রবিবার(২০ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল সাড়ে ১০টায় সারাদেশে নির্মিত ৫৩ হাজার ৩ শত ৪০টি ঘরের সাথে এই উপজেলার ২য় পর্যায়ে নির্মিত ৪০টি ঘর উদ্বোধনের মাধ্যমে উপকারভোগীর মাঝে বিতরণ করবেন।

“আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” এ স্লোগান কে সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জমি ও ঘর প্রদান কার্যক্রম (২য় পর্যায়)-এর উদ্বোধন উপলক্ষে ত্রিশাল উপজেলা প্রশাসন ও নিয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ত্রিশাল উপজেলায় ৪০ টি গৃহ বরাদ্দ করা হয়েছে। ইউনিয়ন ভিত্তিক বৈলর-২ কানিহারী-০৩, রামপুর-০৭, হরিরামপুর-০৪, মোক্ষপুর-২৪ মোট ৪০ ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়। উপকারভোগী বাছাই এর ক্ষেত্রে নীতিমালা অনুযায়ী বিধবা, প্রতিবন্ধী, অসহায় ও বয়স্কদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে।

দুই কক্ষ বিশিষ্ট সেমিপাকা প্রত্যেকটি বাড়ির জন্য ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। প্রতিটি বাড়িতে দুটি শয়নকক্ষ, একটি করে বারান্দা, রান্নাঘর ও বাথরুমসহ নানা সুযোগ-সুবিধা রাখা হয়েছে। গ্রোথ সেন্টারের পাশে হওয়ায় ঘর সংলগ্ন এলাকায় পাকা রাস্তা, স্কুল, মসজিদ-মাদ্রাসা এবং বাজার রয়েছে। প্রতিটি পরিবারের জন্য পানি এবং বিদ্যুৎ সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। যাদের ঘর প্রদান করা হয়েছে তাদের ঐ এলাকাতে যেন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা থাকে সে বিষয়টি বিবেচনা করা হয়েছে।

উপজেলার সহকারী কমিশনার(ভূমি) তরিকুল ইসলাম সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, অনেক যাচাই-বাছাই করে উপকার ভোগী নির্ধারণ করা হয়েছে। চেষ্টা করেছি যারা পাওয়ার উপযোগী তাদেরকে খুঁজে খুঁজে দেয়ার জন্য।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই উপহার শতভাগ স্বচ্ছতার সাথে বিতরণে আমাদের চেষ্টার কোনো কমতি ছিল না। সেমি পাকা এই ঘরগুলো প্রতিটি গৃহহীন ও ভুমিহীন মানুষদের স্বপ্নের বাসস্থান। ইতিমধ্যে প্রতিটি উপকারভোগীদের মাঝে ঘরগুলো হস্তান্তরের জন্য বন্দোবস্ত, রেজিস্ট্রেশন, কবুলিয়াতসহ সকল কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোস্তাফিজুর রহমান সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, ইতোমধ্যে ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। আশা করি সকল নিয়ম মেনে ঘরগুলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের মাধ্যমে বরাদ্দকৃত ভূমি ও গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করতে পারবো। উপকার ভোগী পরিবার গুলো পাবে তাদের স্বপ্নের স্থায়ী ঠিকানা।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন